বিশ্বে প্রথম মানুষের ফুসফুসে প্লাস্টিক কণার সন্ধান


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৭ এপ্রিল ২০২২, ০৯:৪১

বিশ্বে প্রথমবারের মতো মানুষের ফুসফুসের ভেতরে প্লাস্টিক কণার সন্ধান পাওয়া গেছে। বিশ্লেষণ করা প্রায় সব নমুনায় কণা পাওয়া গেছে বলে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, প্লাস্টিক কণার দূষণ এখন পুরো পৃথিবীকে গ্রাস করেছে। মানুষ দেহও এখন এই দূষণ থেকে নিরাপদ থাকছে না। এতে ‘স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকির বিষয়ে ক্রমশ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে।’

অস্ত্রোপচারে যাওয়া ১৩ জন রোগীর দেহ থেকে বিজ্ঞানীরা নমুনা কোষ সংগ্রহ করেছিলেন। তারা ১১ জনের দেহেই ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কণা পেয়েছেন। প্রাপ্ত কণাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সাধারণ হচ্ছে, পলিপ্রোপিলিন, যা প্লাস্টিক প্যাকেজিংয়ে ব্যবহৃত হয় এবং লিইথিলিন টেরেফথালেট, যা বোতল তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। এর আগের দুটি গবেষণায় ফুসফুসের কোষে একইভাবে উচ্চ হারে প্লাস্টিক কণা পাওয়া গেছে।

ইতোমধ্যে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, শ্বাসের মাধ্যম ছাড়াও খাদ্য ও পানীয়ের মাধ্যমে মানুষের দেহে প্লাস্টিকের ক্ষুদ্র কণা প্রবেশ করে বলে জানা গিয়েছিল। উচ্চ মাত্রার প্লাস্টি কণার সংস্পর্শে থাকা শ্রমিকরা এর ঝুঁকিতে থাকে সবচেয়ে বেশি।

মার্চ মাসে প্রথমবারের মতো মানুষের রক্তে প্লাস্টিক কণা সনাক্ত করা হয়েছিল। পরীক্ষায় দেখা গেছে, কণাগুলো শরীরের ভেতরে ভ্রমণ করতে পারে এবং অঙ্গগুলোতে সংযুক্ত থাকতে পারে। স্বাস্থ্যের উপর এর প্রভাব এখনও অজানা।

যুক্তরাজ্যের হুল ইয়র্ক মেডিকেল স্কুলের লরা সাডোফস্কি বলেছেন,‘আমরা ফুসফুসের নিম্নাঞ্চলে যে সর্বোচ্চ সংখ্যক কণা বা যে আকারের কণা খুঁজে পেয়েছি তা আশা করিনি। এটি বিস্ময়কর, কারণ ফুসফুসের নিচের অংশে শ্বাসনালীগুলো ছোট এবং আমরা আশা করেছিলাম এই আকারের কণাগুলো এতোটা গভীরে যাওয়ার আগে পরিশোধন হয়ে যাবে বা আটকে যাবে।’


poisha bazar