জয় দিয়ে মিশন শুরু করল ব্রাজিল


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৫ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৪৬

বিশ্বকাপে মাঠে নামার আগে থেকেই আলোচনার টেবিলে শিরোপা জয়ে হট ফেভারিটের তালিকায় ছিল নেইমারের দল ব্রাজিল। তবে এবারের বিশ্বকাপের শুরুতেই আর্জেন্টিনা-জার্মানির মতো বড় দলের অকল্পনীয় হারে সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে সেলেসাওদের নিয়েও আতঙ্কে ছিলেন ব্রাজিলের অনেক সমর্থক। তবে সব শঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়ে সার্বিয়ান রক্ষণে আগুন ঝরিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার রিচার্লিসন। তার জোড়া গোলের সুবাদে সার্বিয়াকে ২-০ তে হারিয়েছে তিতের দল। সেই সাথে কাতারের মরুর বুকে নিজেদের হেক্সা মিশনের শুরুটাও করল দুর্দান্তভাবে।

শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) দোহার লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে শুরু থেকেই সার্বিয়া রক্ষণে আক্রমণ চালায় ব্রাজিল। তবে ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই নেইমারকে ফাউল করে বসেন সার্বিয়ান ডিফেন্ডার পাভলোভিক। যার ফলে তাকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি।

১৩তম মিনিটে সার্বিয়ার ডি-বক্সে ভিনিসিয়াস জুনিয়র বল কাটাতে গেলে কর্নার পায় ব্রাজিল। নেইমারের বা দিকের দারুণ শট সার্বিয়ার গোলরক্ষক ঠেকিয়ে দেন। তবে আবারও কর্নার কিক পায় ব্রাজিল। সেই কর্নার থেকে নেওয়া নেইমারের শট এবার সহজেই ধরে ফেলেন সার্বিয়ান গোলরক্ষক।

একের পর এক এমন আক্রমণ চালিয়েও জালের দেখা পাচ্ছিল না নেইমাররা-রাফিনহারা। ফলে শুরু থেকেই আক্রমণ করা ব্রাজিল ২৮ মিনিটেও সুযোগ পান অধিনায়ক থিয়াগো সিলভার কল্যাণে। ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে মাঝ মাঠ থেকে দারুণ এক ভলিতে পাস দেন সিলভা। মাঠের বাঁ দিক দিয়ে সেই পাস দুর্দান্ত গতিতে ডি-বক্সে প্রবেশ করান ভিনিসিয়াস। তবে সার্বিয়ান গোলরক্ষক দারুণ ডাইভ দিয়ে গোলের সুযোগ নষ্ট করে দেন।

ফলে বার বার সার্বিয়ান ডিফেন্ডারদের সামনে গিয়ে নিজেদের ফিনিশিং রোলটা পালন করতে ব্যর্থ ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডরা। ৩৩ মিনিটে নেইমারকে রুখে দেন সার্বিয়ান ডিফেন্ডার। অল্পের জন্য বড় সুযোগ নষ্ট করেন ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় এই তারকা। তার ঠিক মিনিট দুয়েক পরে রাফিনহাও একই ভুল করেন। ফলে বার বার গোলবঞ্চিত হতে থাকে হলুদ শিবির।

৪০ মিনিটে আবারও সার্বিয়াকে রক্ষা করেন তাদের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়রা। এবার নিখুঁত ট্যাকেলে ভিনিসিয়াসকে আটকে দেন সার্বিয়ানরা। এরপর আরও কয়েকবার চেষ্টা করেও জালের দেখা না পেলে প্রথমার্ধে হতাশ হয়ে মাঠ ছাড়েন ব্রাজিলের যোদ্ধারা।

বিরতি থেকে ফিরে গোলের জন্য আরও মরিয়া হয়ে ওঠে তিতের শিষ্যরা। এদিকে, আক্রমণের বিপরীতে কোনো উপায় না পেয়ে সার্বিয়ান কোচ একাদশে দুজনকে পরিবর্তন করেন। যার সুবাদে ব্রাজিলের কাছে আক্রমণের পথ আরও সহজেই খুলে যায়।

৬২তম মিনিটে প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সমর্থকদেরও উল্লাসে মাতান রিচার্লিসন। আক্রমণে ডি-বক্সের বাইরে থেকে সরাসরি জালের ঠিকানা খুঁজে নেন টটেনহ্যামের এই তারকা ফুটবলার। এরপর ৭১তম মিনিটে ভিনিসিয়াস জুনিয়রের অ্যাসিস্ট থেকে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন রিচার্লিসন। যার সুবাদে কাতারে নিজেদের হেক্সা মিশনের প্রথম ম্যাচে দুই গোলের লিড পায় থিয়াগো সিলভার দল।

এরপরই লুকাস পাকেতা ও ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে তুলে নেন ব্রাজিল কোচ তিতে। তাদের পরিবর্তে মাঠে নামেন রদ্রিগো ও ফ্রেড। যার ফলে আক্রমণের গতিতে কিছুটা ভাঁটা পড়ে ব্রাজিলের। তবে ৮০ মিনিটে পায়ে ব্যথা অনুভূত হওয়ায় মাঠ ছাড়েন নেইমার। শেষদিকে পুরো ম্যাচে দারুণ খেলা রাফিনহার বদলি করে অন্যদের সুযোগ করে দেন। যার কারণে আর কোনো গোলের দেখা পায়নি সবশেষ ২০০২ সালের চ্যাম্পিয়নরা।


poisha bazar