ফেসবুকের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি কনটেন্ট সরানোর অভিযোগ


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৯ অক্টোবর ২০২১, ২২:০০

সোশাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি কনটেন্ট সরানোর অভিযোগ করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডাব্লিউ)। সংস্থাটির অভিযোগ, '২০২১ সালের মে মাসে ইসরায়েল-ফিলিস্তিনি যুদ্ধের সময় ফিলিস্তিনিদের বিপক্ষে মানবাধিকার লঙ্ঘনের কিছু কনটেন্ট অন্যায়ভাবে সরিয়ে ফেলেছে এবং গোপন করেছে ফেসবুক। এই কনটেন্টগুলো ফিলিস্তিনি ও তাঁদের সমর্থকেরা প্রকাশ করেছিল।'

মে মাসে ইসরায়েলের গাজা আগ্রাসনের সময় ৬৭ শিশু ও ৩৯ জন নারী সহ মোট ২৬০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়। সে সময় ফিলিস্তিনি ও তাঁদের সমর্থকদের ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা বিভিন্ন কনটেন্ট অন্যায়ভাবে মুছে দেয় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। পরে সাফাই গায়- সেটা নাকি ছিল একটি 'টেকনিক্যাল এরর'।

'ফেসবুক কর্তৃপক্ষের এই এরর মেনে নেওয়া এবং সামান্য রিকভারি যথেষ্ট নয়।' দাবি এইচআরডাব্লিউ এর।

তারা বিবৃতিতে আরো যুক্ত করে, 'সেপ্টেম্বরের ১৪ তারিখে ফেসবুক তদারক বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী ফেসবুকের উচিত এই বিষয়ে একটি নিরপেক্ষ তদন্ত কমিশন গঠন করা এবং কোনোরকম পক্ষপাতমূলক আচরণ না করে সঠিক ও নিরপেক্ষ তদন্ত করা। এবং সেটা জনসমক্ষে প্রকাশ করা।'

এইচআরডাব্লিউ-এর আইনজীবী এবং জ্যেষ্ঠ ডিজিটাল রাইটস গবেষক ডেবোরা ব্রাউন বলেন, ফিলিস্তিনি ও তাদের সমর্থকদের মানবাধিকার লঙ্ঘনবিষয়ক বক্তব্যগুলো মুছে দিয়েছে ফেসবুক। তিনি জোর দিয়ে বলেন, 'এ ধরনের ইস্যুতে ফেসবুকের পক্ষপাতিত্বমূলক সেন্সরশিপ নিঃসন্দেহে হুমকিস্বরূপ।'

ইনস্টাগ্রামের বেশ কিছু বক্তব্য ও কয়েকটি স্ক্রিনশট (যা তারা মুছে দেয়) সংযুক্ত করে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ তাদের বক্তব্যে লেখে, এমন অনেক কনটেন্ট সরিয়ে ফেলা হয়েছে 'হেট স্পিচ' উল্লেখ করে। এইচআরডাব্লিউ আরো বলে, এ ধরনের রিমুভ প্রমাণ করে যে ইনস্টাগ্রাম গণ-আগ্রহ ও তার প্রকাশের বিষয়ে খুব একটা স্বাধীনতা দিতে আগ্রহী নয়।


poisha bazar

ads
ads