আকাশে ভাসে যে জাহাজ, যেভাবে...


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৬ মার্চ ২০২১, ২০:৪০

জাহাজ ভাসছে, তাও আবার জলের জাহাজ! ব্যাপরটা অস্বাভাবিক হলেও তার কিছু স্বাভাবিক ব্যাখ্যা আছে। সম্প্রতি উপরোক্ত ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এটি নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে বিশ্বের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

বস্তুত, প্রথমে দেখলে ছবিটি অবিশ্বাস্য মনে হবে। মনে হতে পারে ফটোশপের কারসাজি। কিন্তু তা আসলে ফটোশপের নয়, কারসাজি সমুদ্রে সৃষ্ট মরিচিকার।

ছোটবেলায় আমরা মরীচিকা, ইংরেজিতে যাকে বলে মিরেজ নিয়ে পড়েছিলাম। এটাও সেই মিরেজেরই এক খেলা। যার নাম সুপিরিয়র মিরেজ, যা কি-না জাহাজকেও আসমানে তুলে দিয়েছে। কিন্তু এর পেছনের বিজ্ঞানটা আসলে কী?

আবহাওয়াবিদ ডেভিড ব্রেইন জানান, বিরল এই দৃশ্যটির পেছনের কারণ আসলে মরীচিকা। সাধারণত মরু বা মেরু অঞ্চলের দৃশ্য হলেও সাগরে এমনটা ঘটতে দেখা যায় কালেভদ্রে। সমুদ্রপৃষ্ঠের একেবারে কাছাকাছির বায়ু তুলনামূলক শীতল হলেও একটু ওপরের দিকের বাতাস কিছুটা উষ্ণ হলেই এমন মরীচিকার সৃষ্টি হয়। আর তখনই দৃষ্টিভ্রম হয় আমাদের।

তিনি জানান, বায়ুমণ্ডলের তাপমাত্রার কারণে আলোর এমন এক অবস্থা সেখানে তৈরি হয়েছে, যার কারণে সৃষ্টি হয়েছে ‘সুপার মরীচিকার’। আর এ কারণে জলের জাহাজকে মনে হচ্ছে আকাশে উড়ছে।

আরও সহজ করে বললে বলা যায়, এমনটা ঘটেছে টেম্পারেচার ইনভারশনের কারণে। এক্ষেত্রে দৃষ্টিসীমার নিচের দিকে থাকে অপেক্ষাকৃত শীতল বায়ু, যা সাধারণ পরিস্থিতির বিপরীত দেখেই একে টেম্পারেচার ইনভারশন বলা হয়। এ সময় দূরবর্তী সেই বস্তু থেকে আগত আলোকরশ্মি নিচের দিকে বেঁকে যায়। ফলে সেই বস্তুকে তার মূল অবস্থান থেকে উপরে আছে বলে মনে হয়।

আলোচ্য জাহাজটির ক্ষেত্রেও তাই ঘটেছে। এখানে সুপার ন্যাচারাল বা অতিপ্রাকৃত কোনো বিষয় নেই। আর ছবিটিতে ফটোশপেরও কোনো কারসাজি নেই।

মানবকণ্ঠ/এনএস


poisha bazar

ads
ads