শ্রেষ্ঠ আইসিটি হার্ডওয়্যার রপ্তানিকারক হিসেবে পুরস্কৃত ওয়ালটন

শ্রেষ্ঠ আইসিটি হার্ডওয়্যার রপ্তানিকারক হিসেবে পুরস্কৃত ওয়ালটন
শ্রেষ্ঠ আইসিটি হার্ডওয়্যার রপ্তানিকারক হিসেবে পুরস্কৃত ওয়ালটন - সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:০২,  আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০২০, ০১:২০

ডিজিটাল বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ওয়ালটন। শ্রেষ্ঠ আইসিটি হার্ডওয়্যার রপ্তানিকারক ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার পেল দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। দেশেই উচ্চমানের আইসিটি হার্ডওয়্যার পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানির মাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে বিশেষ অবদান রাখায় ওয়ালটন এ সম্মাননা লাভ করেছে।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) ‘তৃতীয় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস ২০১৯’ অনুষ্ঠানে এ অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ক্রেস্ট গ্রহণ করেন ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এস এম রেজাউল আলম।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে তৈরি ওয়ালটনের একটি স্মার্টফোন দিয়ে ‘আমার সরকার বা মাই গভ’ নামের মোবাইল অ্যাপ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই অ্যাপে সরকারি সব সেবা মিলবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি একেএম রহমতুল্লাহ, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এনএম জিয়াউল আলম, ওয়ালটন কম্পিউটার বিভাগের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লিয়াকত আলী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, উচ্চমানের ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদন, বাজারজাতকরণ ও রপ্তানিতে দেশ-বিদেশে প্রশংসিত নাম ওয়ালটন। ২০০৮ সাল থেকে পর্যায়ক্রমে দেশেই রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন, এয়ার কন্ডিশনার, কম্প্রেসর, মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ-কম্পিউটার ইত্যাদি তৈরি করে আসছে তারা। স্থানীয় চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি যা রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

সম্প্রতি দেশেই নিজস্ব কারখানায় ডির‌্যাম (ডাইনামিক র‌্যানডম অ্যাকসেস মেমোরি) উৎপাদন শুরু করেছে ওয়ালটন। কম্পিউটার ও ল্যাপটপের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ যন্ত্রাংশ তৈরির মাধ্যমে দেশীয় প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদন শিল্পে নতুন এক মাইলফলক সৃষ্টি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। র‌্যামের মতো উচ্চ প্রযুক্তির যন্ত্রাংশ তৈরির পর প্রসেসর উৎপাদনের বৃহৎ কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ওয়ালটন। হার্ডওয়্যারের পাশাপাশি সফটওয়‌্যার নিয়েও কাজ করছে তারা।

সংশ্লিষ্টদের বিশ্বাস, দেশীয় আইসিটি হার্ডওয়্যার উৎপাদন ও রপ্তানির মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ওয়ালটন আরো বেশি অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

মানবকণ্ঠ/এআইএস





ads






Loading...