স্মার্টফোন ‘সার্ভিস ডে’ আয়োজনে অপো

মানবকণ্ঠ
স্মার্টফোন ‘সার্ভিস ডে’ আয়োজনে অপো - মানবকণ্ঠ।

poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২১ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৫১,  আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:০৮

স্মার্টফোন গ্রাহকদের জন্যে প্রতিমাসে ‘সার্ভিস ডে’ আয়োজনের ঘোষণা করল অপো। প্রতি মাসের তৃতীয় শনিবারে আয়োজন করা হবে সার্ভিস ডে। আর এ দিন স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের বিনামূল্যে মোবাইল ক্লিনিং, সফটওয়্যার আপডেট, সেফটি কেস এবং স্ক্রিন প্রোটেক্টর উপহার দেবে অপো।

এদিন যেকোনো সেবা মাত্র এক ঘন্টায় প্রদান করবে দেশজুড়ে ছড়িয়ে থাকা অপো’র সার্ভিস সেন্টারগুলো। ওয়ারেন্টি শেষ হয়ে যাওয়া অপো স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরাও অপো বাংলাদেশের সৌজন্যে বিনামূল্যে সেবা পাবেন। এছাড়াও গ্রাহকদের জন্য বিনামূল্যে স্মার্টফোন ক্লিনিং, সফটওয়্যার আপডেট সেবা থাকবে সার্ভিস ডে’তে। আর সার্ভিস সেন্টারগুলো থেকে বিনামূল্যেই স্মার্টফোন সেফটি কেস এবং স্ক্রিন প্রোটেক্টর উপহার দেবে অপো বাংলাদেশ।

এ বিষয়ে অপো বাংলাদেশের পাবলিক রিলেশন্স এবং মার্কেটিং ম্যানেজার ইফতেখার সানি বলেন, ‘অপো সবসময়ই গ্রাহককেন্দ্রিক একটি প্রতিষ্ঠান। স্মার্টফোন বিক্রয়কে আমরা সাধারণ বিক্রয় কার্যক্রমের স্থলে একটি নতুন সম্পর্কের সূচনা বলে মনে করে থাকি। স্মার্টফোনের মতো একটি সুক্ষ প্রযুক্তি পণ্যের জন্যে উপযুক্ত সার্ভিসিং নিশ্চিত করা বেশ চ্যালেঞ্জিং বিধায় দেশজুড়ে আমরা গড়ে তুলছি অপো সার্ভিস সেন্টার। আর গ্রাহকদের সাথে আমাদের সম্পর্ককে এক ভিন্নমাত্রায় নিয়ে যেতেই প্রতি মাসের তৃতীয় শনিবারে প্রতিটি অপো সার্ভিস সেন্টারে আয়োজন করা হবে অপো সার্ভিস ডে। এদিন গ্রাহকদের জন্যে অপো’র সৌজন্যে থাকবে নানা আকর্ষণীয় অফার ও বিনামূল্যে সার্ভিসিং সেবা'।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো শিল্প ও উদ্ভাবনী প্রযুক্তির মিশেলে তৈরি পণ্য সরবরাহের জন্যে একটি নিবেদিত প্রতিষ্ঠান। তারুণ্য, ট্রেন্ড সৃষ্টি আর সৌন্দর্যের প্রতীক একটি ব্র্যান্ড হিসেবে ডিজিটাল জীবনযাত্রার আরো অসাধারণ অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে অপো বরাবরই গ্রাহকদের জন্যে সর্বোত্তম সেবা দিতে সক্ষম ইন্টারনেট অপটিমাইজড প্রোডাক্ট বাজারজাত করছে।

বর্তমানে ৪০টি দেশে ২০ কোটির অধিক গ্রাহক আর ৪ লাখের অধিক স্টোর আর বিশ্বজুড়ে ৪টি রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের মিশেলে বিশ্বজুড়েই তরুণদেরকে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে সর্বোৎকৃষ্ট অভিজ্ঞতা দিয়ে চলেছে অপো।

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads





Loading...