রাজধানীতে ঈদের জামাত কোথায় কখন

রাজধানীতে ঈদের জামাত কোথায় কখন - ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৩ মে ২০২০, ০৩:৩০,  আপডেট: ২৩ মে ২০২০, ১০:২৮

ঈদুল ফিতর উদযাপনের লক্ষ্যে রাষ্ট্রীয় ও সামাজিক ব্যবস্থাপনায় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন। যথাযথ মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামীকাল রবি (২৪ মে) বা সোমবার (২৫ মে) দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। তবে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে এবার জাতীয় ঈদগাহে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না।

তবে এই পরিস্থিতিতে মাস্ক ব্যবহার, জায়নামাজ বাসা থেকে নিয়ে আসা, নামাজ শেষে কোলাকুলি না করাসহ কিছু শর্ত পালন সাপেক্ষে এবার মসজিদে ঈদের নামাজ পড়ার অনুমতি দিয়েছে সরকার।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রতি বছরের মতো এবারও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদের নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল শুক্রবার ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সকাল ৭টা, ৮টা, ৯টা, ১০টা ও ১০টা ৪৫ মিনিটে বায়তুল মোকাররমে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত হবে সকাল ৭টায়। এতে ইমাম থাকবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেজ ক্বারি কাজী মাসুদুর রহমান।

দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। ইমাম থাকবেন বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেজ ক্বারি হাবিবুর রহমান মেশকাত। সকাল ৯টার তৃতীয় জামাতের ইমাম বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক। মুকাব্বির মুয়াজ্জিন মাওলানা ইসহাক। চতুর্থ জামাত হবে সকাল ১০টায়।

এতে ইমাম থাকবে বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম। মুকাব্বির থাকবেন বায়তুল মোকাররমের চিফ খাদেম মো. শহীদুল্লাহ। পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত হবে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে। এতে ইমাম থাকবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান।

মুকাব্বির হবেন বায়তুল মোকাররমের খাদেম হাফেজ মো. আমির হোসেন। পাঁচটি জামাতে কোনো ইমাম অনুপস্থিত থাকলে বিকল্প ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

এছাড়া নগরবাসীর জন্য এবার কিছু শর্ত পালন সাপেক্ষে ঈদগাহে নয় মসজিদে ঈদের নামাজ পড়ার অনুমতি দিয়েছে সরকার। এদিকে দুই সিটি করপোরেশনের দেয়া তথ্য মতে, দক্ষিণ বনশ্রী কেন্দ্রীয় ও জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টা ও সকাল সাড়ে ৮টায় দুটি জামাত হবে।

মোহাম্মদপুর জামে মসজিদ কমপ্লেক্সে সকাল পৌনে ৮টায় একমাত্র জামাতটি হবে। খিলক্ষেত বাজার জামে মসজিদে সকাল ৮টা ও বটতলা জামে মসজিদে পৌনে ৯টায় দুটি জামাত হবে। পুরান ঢাকার আরমানিটোলা জামে মসজিদে সকাল ৯টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

মাতুয়াইল দরবারে মোজাদ্দেদীয়া, যাত্রাবাড়ীতে সকাল ৯টা ও সাড়ে ৯টায় দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। মিরপুর দারুস সালাম ইসলাম মসজিদ কমপ্লেক্সে সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ্যালিফেন্ট রোডের এরোপ্লেন মসজিদে সকাল ৮টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বনানী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সাড়ে ৮টায় ঈদ জামাত, দারুল ইমাম জামে মসজিদে ঈদ জামাত সকাল ৮টায়, মসজিদে তৈয়্যেবিয়ায় সকাল ৮টা এবং ৯টায় ২টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

বিশ্ব জাকের মঞ্জিলে সকাল সাড়ে ১০টা এবং বনানী দরবার শরিফে সাড়ে ১০টায় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। মিরপুর বায়তুল ফালাহ কমপ্লেক্সে সকাল সাড়ে ৭টা এবং সাড়ে ৮টায় ২টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। মধ্যবাড্ডা পুকুরপাড় জামে মসজিদে ঈদের জামাত ৮টায়। মগবাজার বিটিসিএল জামে মসজিদে সকাল ৮টায়। দেওয়ানবাগ শরিফের বাবে রহমতে ঈদুল ফিতর নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টা, সাড়ে ৯টা এবং সকাল ১০টায়।

ল²ীবাজার নুরানী জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়। কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে প্রথম জামাত সকাল সাড়ে ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত সাড়ে ৮টায় এবং তৃতীয় জামাত সোয়া ৯টায়। দক্ষিণ বনশ্রী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে প্রথম জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় এবং দ্বিতীয় জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়।

মীরবাড়ি আদি জামে মসজিদে সকাল ৮টায়। মীরের বাজার জামে মসজিদে ঈদ জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়। সায়েদাবাদ আরজু শাহ পাক দরবার শরিফ বড় জামে মসজিদে প্রথম জামাত সকাল সাড়ে ৭টা, দ্বিতীয় জামাত সাড়ে ৮টা এবং তৃতীয় জামাত সাড়ে ৯টায়। চিশতীয়া সাঈদিয়া পাক দরবার শরিফ জামে মসজিদে সকাল ৮টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

রসুলবাগ জামে মসজিদে প্রথম জামাত সকাল সাড়ে ৭টা এবং দ্বিতীয় জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়। মদিনাবাগ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে ঈদ জামাত সকাল পৌনে ৮টায়। নয়াপল্টন জামে মসজিদে ঈদ জামাত সকাল ৮টায়। সরকারি মাদরাসা ই আলিয়া, ঢাকায় ঈদ জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে।

মোহাম্মদপুরের মসজিদ-এ-তৈয়্যেবিয়ায় সকাল আটটা ও সকাল ৯টায় দুটি পৃথক জামাত হবে। প্রতিবছরের মতো এবারও ঈদুল ফিতরের নামাজ উপলক্ষে মুসল্লিদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে নেয়া হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয়।


মানবকণ্ঠ/এমএইচ




Loading...
ads






Loading...