শবে কদর হাজার মাসের চেয়ে উত্তম


poisha bazar

  • মাওলানা এম. এ. করিম ইবনে মছব্বির
  • ২০ মে ২০২০, ১০:০৬

আজ ২৬তম রমজান ১৪৪১ হিজরি। আজ বুধবার দিবাগত রাতে শবে কদর। ইমাম আবু মুহাম্মদ ইবনে আবু হাতিম (রা.) সূরা ক্বদরের ব্যাখ্যা প্রদান করতে গিয়ে বিখ্যাত সাহাবী হযরত কাব আহরার (রা.) হতে শবে কদরের রজনী সম্পর্কে একটি বিস্মডলা বর্ণনা উল্লেখ করেছেন।

তা হলো- সপ্তম আকাশে জান্নাতের নিকটবর্তী স্থানে ‘সিদরাতুল মুনতাহা’ অবস্থিত ওই গাছের প্রতিটি শাখা-প্রশাখায় অগনিত ফেরেশতা থাকেন। একচুল পরিমাণ জায়গাও খালি নেই। ওই গাছের মাঝামাঝি স্থানে জিবরাঈল (আ.) ফেরেশতার আবাস। এই রাত হাজার রাতের চেয়ে উত্তম রাত।

মুমিন বান্দাহদের প্রতি অতি স্নেহশীল ও মমতার প্রতীক এই সব ফেরেশতাকে নিয়ে শবে ক‚দরে ভূপৃষ্ঠে পদার্পণ করার জন্য মহান আল্লাহ হযরত জিবরাঈল (আ.) কে নির্দেশ দেন।

শবে ক্বদরে সূর্যাস্তের পরই সমস্ত ফেরেশতা জিবরাঈল (আ.) এর নেতৃত্বে পৃথিবীতে অবতরণ করেন এবং দুনিয়ার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েন। প্রত্যেক স্থানে সিজদা ও রুকু করেন । তারা মুমিন নারী-পুরুষদের জন্য দোয়ায় লিপ্ত হন।

কিন্তু গির্জা, মন্দির-প্রতিমা ও অগ্নি পূজার স্থান, আবর্জনার স্ত‚প যে গৃহে নেশাখোর বাদ্য যন্ত্র ও পুতুল থাকে। সেইসব জায়গা থেকে তারা দূরে থাকেন। এভাবে সারারাত্রি তারা পৃথিবীর আনাচে-কানাচে ঘুরে বেড়ান এবং মুমিনদের জন্যে মঙ্গল কামনা ও কল্যাণের দোয়া করতে থাকেন।

হযরত জিবরাঈল (আ.) প্রতি ঈমানদারদের সাথে করমর্দন করেন। শরীর রোমাঞ্চিত হওয়া হৃদয় বিগলিত হওয়া, নয়না গড়িয়ে পড়া ইত্যাদি তার করমর্দনের প্রতীক।

এই অবস্থা অনুভূত হলে বুঝতে হবে, এই মুহূর্তে আমার হাত জিবরাঈল (আ.) এর হাতের ভিতর। তিনি আরো বলেন যে, ব্যক্তি এই রাত্রিতে তিন বার ‘লা ইলাহা ইল্লালাহু’ পড়বে প্রথম বার পড়ার বদৌলতে তাকে ক্ষমা করা হবে।

দ্বিতীয়বার পড়ার বদৌলতে নরক হতে পরিত্রাণ লাভ করবে। তৃতীয় বার পড়ার ফলে সে বেহেশতে প্রবেশ করবে। সুবহানআল্লাহ। শবে কদরের মহিমান্বিত রজনীতে এই দোয়া বেশি বেশি করে পাঠ করবেন।

আল্লাহুম্মা ইন্নাকা আফউন, তুহিদ্দুল আফওয়া, ফাফু আন্নি ইয়া আল্লাহ। অর্থাৎ হে আলাহ তুমি বড় ক্ষমাশীল, ক্ষমাকে ভালোবাস। কাজেই আমাকে ক্ষমা কর।

 

 




Loading...
ads






Loading...