সহবাসের যে ১৭ বিষয় জানা জরুরি মুমিনের


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৪ জুলাই ২০১৯, ১২:২৩

যৌনতা মানুষের জীবনের একটি অত্যাবশ্যকীয় অধ্যায়। যৌনতা শুধুই উপভোগের ব্যাপার নয়। এর মাধ্যমেই সৃষ্টিকর্তার জমিনে মানুষের আবাদ চলমান থাকে। যৌনতা আছে বলেই হাজার হাজার বছর ধরে পৃথিবীতে মানুষের অস্তিত্ব টিকে রয়েছে। তাই যৌনতাকে হালকা চোখে না দেখে বরং গুরুত্বের চোখে দেখা দরকার।

সর্বাধুনিক এবং শান্তির ধর্ম ইসলাম বৈধ যৌনতাকে উৎসাহিত করেছে। বলা হয়েছে, স্বামী-স্ত্রীর মিলনে রয়েছে অপার রহমত ও সওয়াব।

কিন্তু অনেকেই হয়ত ইসলামিক শরীয়ত মোতাবেক সহবাসের স্বাভাবিক নিয়ম বা পন্থা সম্পর্কে জানেন না। এখানে এ বিষয়ে মানবকণ্ঠের পাঠকদের একটু ধারণা দেয়া হলো।

যদিও হাদিস থেকে বিভিন্ন আসনে সহবাস করার দৃষ্টান্ত পাওয়া যায়। তবে সহবাসের স্বাভাবিক পন্থা হলো এই যে, স্বামী উপরে থাকবে আর স্ত্রী নিচে থাকবে। প্রত্যেক প্রাণীর ক্ষেত্রেও এই স্বাভাবিক পন্থা পরিলক্ষতি হয়।

বলা হয়েছে, স্ত্রীরা হচ্ছে স্বামীর শস্য ক্ষেতের তুল্য। তা আবাদের জন্য, উপভোগের জন্য সর্বপ্রকার স্বাধীনতা দিয়েছে ইসলাম। তবে কিছু বিষয়ে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে মুমিন মুসলমানকে। সেগুলো হলো-

১। রাত্রি দ্বি-প্রহরের আগেসহবাস করবে না।

২। ফলবান গাছের নিচে স্ত্রী সহবাস করবে না।

৩। সহবাসের প্রথমে দোয়া পড়বেন। স্ত্রী সহবাসের দোয়া। তারপর স্ত্রীকে আলিঙ্গন করবেন। স্ত্রী যদি ইচ্ছা হয় তখন তাকে ভালোবাসা ও আদর সোহাগ দিবে। চুম্বন দিবে। উভয়ের মনের সহবাসের পূর্ণ আকাঙ্ক্ষা তৈরি হলে তখন বিসমিল্লাহ বলে শুরু করবেন।

৪। স্ত্রী সহবাস করার সময় নিজের স্ত্রীর রূপ দর্শন, শরীর স্পর্শন ও সহবাসের সুফলের প্রতি মনোনিবেশ করা ছাড়া অন্য কোনো স্ত্রীলোকের বা অন্য সুন্দরী বালিকার রুপের কল্পনা করবে না। তাহার সাহিত মিলন সুখের চিন্তা করবেন না। স্ত্রীর ও তাই করা উচিৎ।

৫। রবিবারে সহবাস করবেন না।

৬। স্ত্রীর হায়েজ-নেফাসের সময় উভয়ের অসুখের সময় সহবাস করবেননা।

৭। বুধবারের রাত্রে স্ত্রীর সহবাস করবেন না।

৮। চন্দ্র মাসের প্রথম এবং পনের তারিখ রাতে স্ত্রী সহবাস করবেননা।

৯। স্ত্রীর জরায়ু দিকে চেয়ে সহবাস করবেন না। এতে চোখেজ্যোতি নষ্ট হয়ে যায়।

১০। বিদেশ যাওয়ার আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১১। সহবাসের সময় স্ত্রীর সহিত বেশি কথা বলবেন না।

১২। নাপাক শরীরে স্ত্রী সহবাস নয়।

১৩। উলঙ্গ হয়ে কাপড় ছাড়া অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৪। জোহরের নামাজের পরে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৫। ভরা পেটে স্ত্রী সহবাস করবেন না, উল্টাভাবে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৬। স্বপ্নদোষের পর গোসল না করে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৭। পূর্ব-পশ্চিম দিকে শুয়ে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

 




Loading...
ads




Loading...