পুরো কাশ্মীরকে অন্তর্ভুক্ত করে পাকিস্তানের নতুন মানচিত্র


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৬ আগস্ট ২০২০, ০৮:৪১

সমগ্র কাশ্মীরকে অন্তর্ভুক্ত করে দেশের নতুন রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করেছে পাকিস্তান। ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত দেশটির সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিলের বর্ষপূর্তির প্রাক্কালে ইমরান খান সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

পাকিস্তানের শীর্ষস্থানীয় ইংরেজি দৈনিক ডনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, শুধু সমগ্র কাশ্মীর নয়, গুজরাটের জুনাগড়কেও নতুন মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করেছে পাকিস্তান।

মঙ্গলবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে নয়া মানচিত্রের অনুমোদন শেষে ইমরান খান বলেন, ‘আজ পাকিস্তানের ইতিহাসে সবচেয়ে ঐতিহাসিক দিন। এই প্রথমবার ভারত অধিকৃত কাশ্মীরকে পাকিস্তানের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, পাকিস্তানের সব রাজনৈতিক দলের এতে সমর্থন রয়েছে। গত বছরের ৫ আগস্ট নেয়া ভারত সরকারের অবৈধ দখলদারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এই মানচিত্র একটি প্রতিবাদ। রাজনৈতিক ম্যাপ প্রকাশনা উপলক্ষে মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশির পাশে রেখে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এসব কথা বলেন।

ইমরান খান এ সময় জানান, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবনার অধীনেই কেবল কাশ্মীর নিয়ে বিরোধের অবসান হতে পারে। জাতিসংঘ প্রস্তাবনায় কাশ্মীরি জনতাকে তারা কোন রাষ্ট্রে যোগ দিতে চায় সেই সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা দেয়া হয়েছিল।

কাশ্মীর নিয়ে জাতিসংঘের প্রতিশ্রুতির কথা তুলে ধরে ইমরান খান বলেন, ‘কাশ্মীরের জনতাকে দেয়া বিশ্ব সম্প্র্রদায়ের প্রতিশ্রুতি এখনো পূরণ হয়নি। আমরা স্পষ্ট করে বিশ্ব সম্প্রদায়কে বলতে চাই যে এটিই (কাশ্মীরি জনতা কোন রাষ্ট্রে যোগ দিতে চায় সেই সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা) একমাত্র সমাধান। সরকার এই বিষয়ে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে।’

নতুন মানচিত্র উন্মোচন করার পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমরা রাজনৈতিকভাবে আমাদের এই লড়াই করব। কেন না আমরা সামরিক সমাধানে বিশ্বাস করি না। আমরা জাতিসংঘকে বারবার মনে করিয়ে দেব যে আপনারা (কাশ্মীরের জনগণের কাছে) যে প্রতিশ্রুতি করেছিলেন তা এখনো পূরণ করেননি।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুরেশি এ সময় জানান, ‘কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদন লাভের পর অচিরেই নতুন মানচিত্রটি পাকিস্তানের আনুষ্ঠানিক মানচিত্রে পরিণত হবে। এরপর সেটি অন্তর্ভুক্ত করা হবে স্কুল-কলেজের পাঠ্য বইয়ে। নতুন মানচিত্র প্রকাশের উদ্যোগ নেয়ায় কুরেশি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রশংসা করেন।

পাকিস্তানের নতুন মানচিত্র প্রকাশ নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তীব্র সমালোচনা করেছে। মঙ্গলবারই এক বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পাকিস্তানের যে তথাকথিত ‘রাজনৈতিক মানচিত্র’ প্রকাশ করেছেন, তা আমাদের নজরে এসেছে। এই নতুন মানচিত্র আদতে রাজনৈতিক অবাস্তবতা। অর্থহীন। ওই মানচিত্রে ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু, কাশ্মীর ও লাদাখ এবং একটি পূর্ণাঙ্গ রাজ্য গুজরাটের পশ্চিম অংশের বেশ কিছু এলাকাকে যে ভাবে পাক ভূখণ্ডে দেখানো হয়েছে, তা কখনোই সমর্থন করা যায় না। এই হাস্যকর পদক্ষেপের যেমন কোনো আইনি বৈধতা নেই, তেমনই নেই কোনো আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতাও।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, সীমান্তপার সন্ত্রাসের সমর্থন নিয়ে পাকিস্তান যে উপমহাদেশে আগ্রাসনে বিশ্বাসী, নতুন মানচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে শুধুমাত্র সেটাই প্রমাণ করল ইসলামাবাদ।

 





ads







Loading...