করোনাভাইরাসে স্থবির বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন

মানবকণ্ঠ
ছবি - সংগৃহীত।

poisha bazar

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • ১৪ মার্চ ২০২০, ১৩:৫৪

মরণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রভাব যে ক্রীড়াঙ্গনে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়বে তা হয়তো ভাবতে পারেনি কেউই।  কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর রূপে পরিণত হচ্ছে।  ইতোমধ্যেই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়।  যার কারণে স্থগিত হয়ে গেছে লা লীগা, সিরি’আ, চ্যাম্পিয়নস লিগ, এনবিএসহ বিশ্বের বড় বড় সব ক্রীড়া প্রতিযোগিতা।  অনেক জায়গায় বন্ধ না করতে পারলেও দর্শকশূন্য মাঠে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বিভিন্ন খেলা।  কিন্তু গত এক দিনে ঘটে গেছে অনাকাক্সিক্ষত সব ঘটনা।  তারই সারাংশ তুলে ধরা হল:

স্থগিত চ্যাম্পিয়নস লিগ
করোনা ভাইরাসের প্রভাবে পিএসজি-বরুশিয়ার ম্যাচটি দর্শকশূন্য মাঠে অবস্থিত হলেও শেষ পর্যন্ত আগামী সপ্তাহের ম্যাচগুলো স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগ কর্তৃপক্ষ।  সেই সঙ্গে স্থগিত করা হয়েছে ইউরোপা লিগের ম্যাচগুলোও।  আগামী ১৮ ও ১৯ মার্চ শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল রিয়াল-ম্যানসিটি, জুভেন্টাস-লিও বার্সেলোনা-নাপোলি, বায়ার্ন-চেলসির। তবে করোনার কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে নেয়া হয়েছে তা।  এ সম্পর্কে উয়েফার পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইউরোপে কোভিড-১৯ মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ার কারণে বিভিন্ন দেশের সরকার প্রায় একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাই আগামী সপ্তাহে উয়েফার আয়ত্তে থাকা সবগুলো ম্যাচ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।’

পেছানো হোক অলিম্পিক, পরামর্শ ট্রাম্পের
প্রতি চার বছর অন্তর অন্তর হয়ে থাকে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের সবচেয়ে বড় আসর অলিম্পিক।  এবারে ২০২০ সালে প্রতিযোগিতাটির আয়োজক জাপানের রাজধানী টোকিও।  করোনা ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনের প্রতিবেশী দেশ হওয়ায় টোকিও অলিম্পিক নিয়ে আছে প্রচুর শঙ্কা।  এমনকি গুঞ্জন ছড়িয়েছে স্থগিত কিংবা বাতিল হতে পারে গেমসটি।  এতসবের মাঝে টোকিও অলিম্পিক পেছানোর দাবি করছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি গুরুতর বুঝলে ফাঁকা স্টেডিয়ামে অলিম্পিক্স আয়োজন করার চেয়ে, তা এক বছর পিছিয়ে দেয়া যেতেই পারে।’ আগামী ২৪ জুলাই থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে টোকিও অলিম্পিক।


করোনায় আক্রান্ত আর্সেনাল কোচ, স্থগিত প্রিমিয়ার লিগ

নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ইংলিশ ক্লাব আর্সেনালের হেড কোচ মিকেল আর্তেতা।  মরণঘাতী এই ভাইরাস শরীরে ধরা পরার বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেছেন তিনি। যার কারণে স্থগিত রয়েছে আজ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ব্রাইটনের বিপক্ষে গানারদের ম্যাচটি।  করোনায় আক্রান্ত হওয়া সম্পর্কে আর্তেতা বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক।  শরীরের অবস্থা খারাপ হওয়ায় আমি পরীক্ষা করেছিলাম। ক্লাব আমাকে যখন অনুমতি দেবে তখন থেকেই আবার কাজে ফিরতে পারব। আর্সেনাল ধারণা করছে, পুরো স্কোয়াডসহ ‘উল্লেখযোগ্য সংখ্যক লোক’ স্বেচ্ছায় অন্যদের থেকে নিজেদের আলাদা করে রাখবেন।  এছাড়া ইংলিশ উইঙ্গার কলাম হাডসন-ওডোই করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন বলে শুক্রবার জানিয়েছে তার ক্লাব চেলসি। উপসর্গ দেখা দেয়ায় লেস্টার সিটির তিন ফুটবলার স্বেচ্ছায় অন্যদের থেকে নিজেদের আলাদা করে রেখেছেন বলে জানিয়েছেন দলটির কোচ ব্রেন্ডন রজার্স।  এমতাবস্থায় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চলবে নাকি স্থগিত হবে তা নিয়ে এক জরুরি সভা ডেকেছিল কর্তৃপক্ষ। অবশেষে স্থগিত করার সিদ্ধান্তই নেয়া হয়। আগামী ৩ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে ইউরোপের শীর্ষ এই লিগটি।

শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত করল ইংল্যান্ড
করোনা ভাইরাসের কারণে শ্রীলঙ্কা সিরিজ বাতিল করেছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল।  দুটি টেস্ট ও দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছিল তারা। প্রস্তুতি ম্যাচ শেষ হওয়ার পর অবস্থার অবনতি হওয়া দলের ক্রিকেটারদের দেশে ফিরে আসার নির্দেশ দিয়েছে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। এক বিবৃতিতে তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘কোভিড-১৯ এর পরিস্থিতি যেহেতু বিশ্বজুড়ে খারাপ হচ্ছে, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলে আমরা আমাদের ক্রিকেটারদের যুক্তরাজ্যে ফিরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ফলে শ্রীলঙ্কা ও ইংল্যান্ডের আসন্ন টেস্ট সিরিজ স্থগিত থাকবে।’
পিছিয়ে গেল দক্ষিণ আমেরিকার বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব

আগামী ২৩ মার্চ থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল ২০২২ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্ব। তা সামনে রেখে স্কোয়াডও ঘোষণা করে দিয়েছে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মতো দেশগুলো। তবে করোনার সংক্রমণে একের পর এক যখন স্পোর্টিং ইভেন্ট বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, তখন তারাও ফিফার অনুমতি নিয়ে পিছিয়ে দিয়েছে খেলা।

কনমেবলের অনুরোধের প্রেক্ষিতেই ম্যাচগুলো স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিবৃতিতে ফিফা জানিয়েছে, ‘কনমেবলের সাথে আলোচনার পর ফিফা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী ২৪ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচগুলো আয়োজিত হওয়ার কথা থাকলেও আপাতত সেগুলো পিছিয়ে যাচ্ছে। তবে ম্যাচগুলো কবে অনুষ্ঠিত হবে, সে ব্যাপারে পরবর্তীতে বিস্তারিত জানানো হবে। ফিফা গভীরভাবে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। পরবর্তীতেও দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সূচিতে কোনো পরিবর্তন আনার প্রয়োজন হলে ফিফা তখন সিদ্ধান্ত নেবে।’

রক্ষা পেলেন অসি পেসার

করোনা ভাইরাসের উপসর্গ পাওয়ার পর সতর্কতার কারণে পেসার কেন রিচার্ডসনকে সঙ্গে সঙ্গে কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। যার জন্য গতকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে একাদশে রাখা হয়নি তাকে।  কোভিড-১৯ ভাইরাস পরীক্ষাও করা হয় তার। তবে স্বস্তির খবর হলো, পরীক্ষায় করোনা ভাইরাসের কোনো উপস্থিতি পাওয়া যায়নি, ফল এসেছে ‘নেগেটিভ’।

করোনামুক্ত জানার পর হোটেল কোয়ারেন্টাইন থেকে অস্ট্রেলিয়া দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন রিচার্ডসন।  বৃহস্পতিবার হালকা গলা ব্যথা দেখা দেয় তার। অস্ট্রেলিয়ার মেডিকেল টিমের কাছে তিনি সেটা জানানোর সঙ্গে সঙ্গেই এই পেসারকে পাঠিয়ে দেয়া হয় কোভিড-১৯ ভাইরাস পরীক্ষার জন্য। পরীক্ষায় স্বস্তির ফল এসেছে রিচার্ডসনের জন্য।

দর্শকশূন্য অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের প্রথম ওয়ানডে
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে দর্শকদের ছাড়াই অনুষ্ঠিত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সিরিজের প্রথম ওয়ানডে।  সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে এমনকি একে অপরের সঙ্গে হ্যান্ডশেক পর্যন্ত করেনি দুই দলের খেলোয়াড়রা। তাই দর্শক না থাকায় অভিনব এক কাজ করতে হয়েছে তাদের। ছক্কা হাঁকানোর পর গ্যালারি থেকে বল কুড়িয়ে আনতে হয়েছে ফিল্ডিং দলের ক্রিকেটারদেরই।  দর্শকহীন স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের ১৯তম ওভারের প্রথম বলেই ইশ সোধিকে ৬ হাঁকান অ্যারন ফিঞ্চ। মিড-উইকেটের উপর দিয়ে বল গিয়ে পড়ে শূন্য গ্যালারিতে। গ্যালারি থেকে বল কুড়িয়ে বোলারকে দেয়ার মতো ছিল না কেউ, তাই বাধ্য হয়ে গ্যালারিতে উঠে আসেন কিউই পেসার লকি ফার্গুসন। এছাড়া একই কাজ করতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ফিল্ডারদের ক্ষেত্রেও। তবে মাঠে ছিলেন একজন দর্শক। নাম তার স্টিফেন হ্যারল্ড গ্যাসকোইন। ১৯২০ থেকে ১৯৩০-এর দিকে এসসিজি মাঠে স্কোরকার্ডের সামনে বসে খেলা উপভোগ করতেন তিনি।  খেলার মাঝখানে ক্রিকেটারদের উদ্দেশে মজার মজার সব মন্তব্য করতেন এই দর্শক। ২০০৮ সালে তার একটা মূর্তি স্থাপিত হয় এসসিজিতে। তাই গতকাল তিনিই ছিলেন একমাত্র দর্শক হিসেবে।

পাকিস্তান ছাড়ছেন বিদেশি ক্রিকেটাররা

প্রথমবারের মতো ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত হচ্ছে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) পূর্ণ টুর্নামেন্ট। নিরাপত্তার শঙ্কাকে দূরে ঠেলে এতে অংশ নিয়েছেন বেশ কয়েকজন বিদেশি ক্রিকেটার। কিন্তু টুর্নামেন্টের মাঝপথেই যে যার দেশে ফিরে যাচ্ছেন তারা। এর একটাই কারণ করোনা ভাইরাস।

সারাবিশ্বের মতো পাকিস্তানেও হানা দিয়েছে মরণঘাতী এই ভাইরাস। তাই দেশে ফিরে যাচ্ছেন মঈন আলী, জেসন রয়, জেমস ভিন্স, অ্যালেক্স হেলস, ক্রিস জর্ডানরা।  এমনই এক খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ‘ডেইলি মেইল’।  কিন্তু ফ্লাইট বাতিলের কারণে দেশে ফিরতে ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে তাদের।  এবারের পিএসএলে ১৫ জন ইংলিশ ক্রিকেটার খেলছেন। তাদের সবাই দেশে ফিরতে চান যত দ্রæত সম্ভব।  ডেইলি মেইল জানিয়েছে, শনিবারের মধ্যেই ইংল্যান্ডে ফিরে যাবেন ক্রিকেটাররা। ইংলিশ ক্রিকেটাররা ফিরে গেলে তাদের দেখাদেখি অন্য দেশের বিদেশিরাও যে পাকিস্তান ছাড়বেন, সেটা বোঝাই যাচ্ছে।

পেছাল আইপিএলও

গেল সপ্তাহেই বিসিসিআই (ভারত ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি জানিয়েছিলেন, করোনা আতঙ্কে পেছাবে না আইপিএল মাঠে গড়ানোর তারিখ।  ভারতীয় ক্রিকেটের সর্বোচ্চ কর্তা নিজের সিদ্ধান্তে অনড় রইলেও, কিছুদিন ধরে আইনি জটিলতা ও ভারতে প্রায় শ’খানেক মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় শেষতক বাধ্য হয়েই বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট পেছানোর সিদ্ধান্ত আয়োজকরদের।  গতকাল বিসিসিআইয়ের কর্তারা নিশ্চিত করেছে, দুই সপ্তাহের জন্য পেছান হয়েছে আইপিএল।  ১৫ এপ্রিলের পর টুর্নামেন্ট শুরু হলেও তাও দর্শকহীন গ্যালারিতেই হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। আজ মুম্বাইতে টুর্নামেন্টের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনায় বসবে বোর্ড। একইদিনে আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকও আজ।  বিসিসিআই সচিব জয় শাহ বলেছেন, ‘বিসিসিআই ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত আইপিএল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আইপিএলের সঙ্গে জড়িত সবাই যাতে সুস্থ, নিরাপদে থাকেন, সেই ব্যাপারে বিসিসিআই সদা সতর্ক। সবার কথা চিন্তা করেই আইপিএল পিছিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

ভিডিও কলে আইসিসি সভা
চলতি মাসের শেষদিকে নির্ধারিত বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসির। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে সেটি পিছিয়ে দেয়া হয় মে মাস পর্যন্ত। তবে এবার নতুন সমাধানে পৌঁছেছে সংস্থাটি। বার্ষিক সভা পূর্ণাঙ্গভাবে হবে মে মাসের শুরুতেই। এর আগে পূর্ব নির্ধারিত সময় অর্থাৎ মার্চের ২৬ থেকে ২৯ তারিখ পর্যন্ত ভিডিও কনফারেন্স কলের মাধ্যমে স্বল্প পরিসরে এবারের সভা আয়োজন করার সিদ্ধান্তে নেয়া হয়েছে। আইসিসির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে উদ্ভ‚ত পরিস্থিতির কারণে বোর্ডের সদস্যদের অনেকেই চিন্তিত এবং এ বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপের অপেক্ষায় রয়েছে। এমন অবস্থায় আইসিসি ঠিক করেছে যে, চলতি মাসের শেষে দুবাইতে সে বার্ষিক সভা ছিল, সেটি এখন শুধুমাত্র কনফারেন্স কলের মাধ্যমে হবে। আইসিসি বোর্ড এবং সদস্যরা যার যার জায়গায় থেকেই শুধুমাত্র গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের জন্য এ বৈঠকে বসবে। পূর্ণাঙ্গ বৈঠক হবে মে মাসের শুরুতে। তবে এ ব্যাপারে যে কোনো কিছু ঠিক করার আগে সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রাখা হবে। সবার স্বাস্থ্যগত বিষয় সর্বোচ্চ গুরুত্ব পাবে।’

স্থগিত দক্ষিণ আফ্রিকা-ভারত সিরিজ
করোনা ভাইরাস শঙ্কার মধ্যেই ভারত সফরে এসেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ, সংক্ষিপ্ত সফর বলেই হয়তো এত ভয় ছিল না প্রোটিয়াদের। স্বাস্থ্য সচেতনতায় কেবল ‘হ্যান্ডশেক’ না করার কথা জানিয়েছিল তারা। এসবের মাঝে ধর্মশালায় বৃহস্পতিবার বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয় সিরিজের প্রথম ম্যাচ। এর মধ্যে সিদ্ধান্ত হয় সিরিজের বাকি দুই ওয়ানডে হবে দর্শকবিহীন স্টেডিয়ামে, করোনার ঝুঁকি এড়াতে রুদ্ধদ্বার ম্যাচ। সেই ম্যাচের জন্য লখনৌতে পৌঁছেও গিয়েছিলেন বিরাট কোহলিরা। এমন সময় এলো সিরিজ বাতিলের ঘোষণা। এতে কোনো ম্যাচ না খেলেই দেশে ফিরতে হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে। ভারত সফরটা তাদের জন্য হয়ে রইল কেবল ‘ভ্রমণ’।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads






Loading...