করোনায় লকডাউনের বিকল্প কী?

ইসমাইল হোসেন

ইসমাইল হোসেন
ইসমাইল হোসেন - ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০২ মে ২০২০, ২১:৩১,  আপডেট: ০২ মে ২০২০, ২১:৩৫

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে আগামী ৩/৪ মাসের মধ্যে বাংলাদেশ তথা বিশ্ব করোনামুক্ত হবার সম্ভাবনা কম। যদি এটাই সত্য হয় তাহলে প্রশ্ন উঠে, আমরা কি এভাবেই আরো৩/৪ মাস ঘরে বন্ধী থাকবো নাকি এর বিকল্প কোনো পথ খুঁজব ?

তথ্য রয়েছে, এ পর্যন্ত বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮,২৩৮ জন,এর মধ্যে মারা গেছেন ১৭০ জন। এই সংখ্যা দিনের পর দিন বাড়ছে, যা সামনের দিনে আরো বাড়বে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। এমন অবস্থায় ঘরে থাকাটাই উত্তম এবং সবার জন্য নিরাপদ বলেও বিশেষজ্ঞরা বলছেন। ভয়াবহতা এবং বাস্তবতায় আমিও এর বাইরে নই। কিন্তু এভাবে চলতে থাকলে দেশের কি হবে দেশের মানুষেরই বা কি হবে ? অর্থাৎ যে দেশের সিংহভাগ মানুষ মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত এবং দরিদ্র। সে দেশে এভাবে মাসের পর মাস লকডাউন থাকলে না খেয়ে মরা ছাড়া কোনো পথ নেই।

বলা বাহুল্য, অগণিত মধ্যবিত্ত পরিবার আছে যাদের পুরো পরিবার একজনের আয়ের উপর নির্ভর করে। এমন অনেকে আছেন, ছোট একটি দোকানের দৈনিক কেনা-বেচার ওপরই নির্ভর করতে হয় পুরো পরিবারকে কিংবা দিনে কাজ না করলে পেটে ভাত জোটেনা। দিন এনে দিন খাওয়া পরিবারের সংখ্যাও কম নয়।

প্রশ্ন হচ্ছে, এসব পরিবার কিভাবে মাসের পর মাস ঘরে বসে ভালো থাকবে? সরকারের পক্ষে সর্বোচ্চ চেষ্টায়ও জনবহুল দেশে সবার ঘরে খাবার পৌঁছানো কতুকুই বা সম্ভব? যদিও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সরকারীভাবে কিংবা অনেক সংগঠন, অনেক প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিও সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন। ব্যাক্তিগতভাবে আমি নিজেও রাজধানীতে অসহায় এবং দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু সেই একই প্রশ্ন, এভাবে মাসের পর মাস সবার ঘরে ঘরে সহযোগিতা পৌছানো কতটা সম্ভব? সব কিছুরই তো একটি সীমাবদ্ধতা আছে! এমন পরিস্থিতির কোনো না কোনো বিকল্প পথ বের করা অতিব জরুরী। সরকারকেও হয়তো সে পথ বেছে নিতে হবে। যার অংশ হিসাবে সরকার থেকে অফিস আদালত খুলে দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

এ অবস্থায় সবার কাছে বিনীত অনুরোধ, ঘর থেকে বের হলে নিয়মনীতি মেনে সামাজিক দূরত্ব যেন বজায় রাখি। মেনে চলি স্বাস্থ্য বিধিমালা। অন্তত জীবনের জন্য হলেও নিজেদের ক্ষতি যেন ডেকে না আনি। নিজে ভাল থাকি অন্যকে ভাল রাখি এই প্রত্যাশায়....
ভালো থাকুক দেশের মানুষ ভালো থাকুক বাংলাদেশ।

পরিচিতি: সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ।




Loading...
ads






Loading...