• শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
  • ই-পেপার
12 12 12 12
দিন ঘন্টা  মিনিট  সেকেন্ড 

ধর্ষণ বন্ধের উপায় জানালেন ঢাবি শিক্ষক তাসলিমা

মানবকণ্ঠ
তাসলিমা ইয়াসমিন - ছবি: সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:২১

মানসিক বিকৃতির কারণে ধর্ষণের সংখ্যা বাড়ছে। তাছাড়া আইনের দুর্বলতা এবং বিচার ব্যবস্থার অবনতির সুযোগও কাজে লাগাচ্ছে অপরাধীরা। কারণ অপরাধীরা বিশ্বাস করছে যে, তারা ধর্ষণ করলে পার পেয়ে যাবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তাসলিমা ইয়াসমীন এ কথা বলেন। 

সোমবার বেসরকারি টিভি চ্যানেল ডিবিসি নিউজে তাসলিমা ইয়াসমীন আরও বলেন, বর্তমান অপরাধ প্রবণতার মাধ্যমগুলো পরিবর্তন হয়েছে, মানুষের মনুষত্ববোধ এবং সামাজিক মূল্যবোধ হারিয়ে গেছে। প্রত্যেকটা মানুষের দুঃসাহস বেড়ে গেছে।

তিনি বলেন, ধর্মের অনুশাসন রয়েছে , পরিবারের শাসন রয়েছে, মা-বাবার শাসন রয়েছে কিন্তু তার মাধ্যমে কিশোরদের যে, শিক্ষা দেয়া হচ্ছে তার মধ্যে একটা গ্যাপ থেকে যাচ্ছে, যা বর্তমান শিশু ও কিশোরদের মধ্যে মানসিকতায় পজেটিভ প্রভাব ফেলছে না। ফলে তারা বিভিন্ন ধরণের অপরাধের সংঙ্গে যুক্ত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ধর্ষণ এবং অপরাধ মোকাবেলায়, আমাদের গদবাধা শিক্ষা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে এবং নারী পুরুষের মাঝে বৈষম্য দূর করতে হবে। পরিবার কি শিক্ষা দিচ্ছে, পাঠ্যক্রমে কি শিক্ষা দেয়া হচ্ছে, সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। ধর্ষণের ক্ষেত্রে নতুন আইনপ্রনয়ণ করতে হবে, বাক্য এবং ভাষাগত পরিবর্তন আনতে হবে।

মিডিয়াকে একত্রিত হয়ে নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে কাজ করতে হবে। রাষ্ট্রকে এগিয়ে আসতে হবে, পাশাপাশি ধর্ষণের ক্ষেত্রে বিচারকমণ্ডলী সঠিক ভাবে কাজ করছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। 

মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads






Loading...