manobkantha

সালথায় বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ১

ফরিদপুরের সালথায় বিয়ের প্রলোভনে তালাকপ্রাপ্ত এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় জাকির হোসেন লিটন (৪৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সালথা থানার ওসি মো. শেখ সাদিক বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সালথা থানা পুলিশ গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ঢাকার রমনা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে বুধবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তার জাকির হোসেন লিটন সালথা উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের কাগদী স্বজনকান্দা গ্রামের মো. হারুন শেখের ছেলে। তিনি কাগদী বাজারে টিনের দোকান করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২৮ বছর বয়সী বিবাহিত ওই নারীর ডিভোর্স হওয়ার পর জাকির হোসেন লিটনের সঙ্গে তার প্রেম সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের সুবাদে জাকির প্রায়ই তাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ঘুরতে নিয়ে যেতেন। গত ১৫ আগস্ট বেলা ১১টার দিকে ওই নারী সালথা বাজারে শপিং করার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে পথে জাকিরের সঙ্গে তার দেখা হয়। এ সময় তাকে ফুঁসলিয়ে কাগদী এলাকার জৈনকের একটি দোতলা বাড়ির রুমের ভেতরে নিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ফলে ওই নারী অসুস্থ হয়ে পড়লে সু-কৌশলে তিনি পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহত নারীকে উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসিসিতে ভর্তি করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সালথা থানার এসআই আনিচুর রহমান বলেন, গত ২২ আগস্ট ধর্ষণের অভিযোগ এনে ব্যবসায়ী জাকিরের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন ওই নারী। মামলা করার পর থেকে জাকির পলাতক ছিলেন। পরে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ঢাকার রমনা থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মানবকণ্ঠ/এমআই