manobkantha

উজিরপুরের প্রবাসীর বাড়িতে চুরির ঘটনায় গ্রেপ্তার ১

বরিশাল জেলার উজিরপুরের ঘন্টেশ্বরে প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনায় মামলার আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১২ আগষ্ট) সন্ধ্যায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উজিরপুর মডেল থানার এসআই মেহেদী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে ঘন্টেশ্বর এলাকা থেকে ওই এলাকার মনির হোসেন অপুকে গ্রেপ্তার করেন।

মামলা ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের ঘন্টেশ্বর গ্রামের প্রবাসী মো. শাহিন সেরনিয়াবাদের বাড়িতে ২২ জুলাই গভীর রাতে চোর তালা খুলে প্রবেশ করে আলমারী ভেঙে নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকারসহ ৪ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়ে যায়।

প্রবাসীর স্ত্রী ভুক্তভোগী রেকসোনা খানম জানান, ২২ আগষ্ট তার মা হঠাৎ অসুস্থ্ হয়ে পড়লে খবর পেয়ে বাবার বাড়ি চকমান গ্রামে চলে যাই। যাওয়ার সময় চাবির গোছা পার্শ্ববর্তী ঘরের ফাতেমা বেগমের নিকট রেখে যাই। ওই চাবি দিয়ে ঘরের পিছনের দরজার তালা খোলা যায়। এরপর ২৪ জুলাই রাত পৌনে ১১টার দিকে ফাতেমা বেগমের স্বামী মনির হোসেন অপু আমার মোবাইলে ফোন করে জানতে চায় আমি কবে বাড়িতে ফিরব। পরবর্তীতে ২৭ জুলাই সকাল ১০টার দিকে বাড়িতে ফিরে এসে সামনে ও পিছে পূর্বের ন্যায় তালাবদ্ধ দেখতে পাই। কিন্তু দরজা খুলে আমার বাড়িতে প্রবেশ করে দেখতে পাই আমার মাঝের ঘরের তালা ভাঙ্গা এবং ষ্টীলের আলমারির কপাট ভাঙা। এরপর চুরি সংঘটিত হওয়ার সন্দেহ হওয়ায় খোঁজাখুঁজি করে এক পর্যায়ে দেখতে পাই আমার সর্বস্ব লুটে নিয়েছে চোর। এরপর মনির হোসেন অপুকে সন্দেহ হওয়ায় তাকে জিজ্ঞেস করলে সে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং আমি উক্ত ঘটনার বিষয়ে থানায় অভিযোগ করার কথা বলল সে আমাকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি দেয়। এছাড়া আমার ব্যবহৃত একখানা ধারালো দা মনির হোসেন অপু বাগান পরিস্কার করার জন্য বাবার বাড়ি যাওয়ার পূর্বে নেয়। বাড়িতে এসে ওই দা খানা আমার পিছনের রুমে টেবিলের উপর পাই। এরপর সন্দেহের তীর মনির হোসেন অপুর দিকে চলে যায়।

এ ঘটনায় ৪ আগস্ট উজিরপুর মডেল থানায় প্রবাসীর স্ত্রী রেকসোনা খানম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করে।

এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার এসআই মেহেদী জানান, মামলা নেয়ার পরে ১২ আগষ্ট অভিযান চালিয়ে মনির হোসেন অপুকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং ১৩ আগষ্ট জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

 

মানবকণ্ঠ/পিবি