manobkantha

ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা নিষিদ্ধ করেছে চীন

ক্রিপ্টোকারেন্সির (ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা) লেনদেনের উপর কঠোরতা আরোপ করেছে চীন। দেশটির বিনিয়োগকারীদের ক্রিপ্টোকারেন্সি লেনদেনের মাধ্যমে বিদেশী আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা নিষিদ্ধ করা হয়। এরই অংশ হিসেবে বিটকয়েন, ইথেরিয়াম, রিপল ও লাইটকয়েনের মতো অনুমোদনহীন ডিজিটাল মুদ্রার ব্যবহার ও লেনদেন নিষিদ্ধ করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এই ঘোষণার পরই দরপতন শুরু হয় বিটকয়েনের। ৮ শতাংশ দরপতনে ৪১ হাজার ডলারে দাঁড়িয়েছে বিটকয়েনের মূল্য। দরপতন হয়েছে ইথেরিয়ামেরও। পাশাপাশি মূল্য পতন ঘটেছে অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সিরও।

এর আগে ২০১৩ সালে চীনা ব্যাংকগুলোর জন্য ক্রিপ্টোকারেন্সি নিষিদ্ধ করা হয়। এ বছরের শুরুতে ক্রিপ্টোকারেন্সিতে ওপর কড়াকড়ির ঘোষণা দিয়েছিল চীনা কর্তৃপক্ষ। ওই ঘোষণা পর ব্যাপক পরিমাণ ডিজিটাল মুদ্রা বিক্রি করে দিয়েছিলেন দেশটির ক্রিপ্টোকারেন্সি লেনদেনকারীরা। তবে তখন নিষিদ্ধের পক্ষে ছিলেন উদ্বিগ্ন কর্মকর্তারা।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) এক নোটিশে দ্য পিপলস ব্যাংক অব চায়না জানায়, ‘বিটকয়েন, ইথেরিয়ামসহ অন্যান্য ডিজিটাল মুদ্রা আর্থিক ব্যবস্থায় ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে এবং অর্থ পাচারসহ অন্যান্য অপরাধে ব্যবহার হচ্ছে। ভার্চুয়্যাল মুদ্রা সংক্রান্ত সমস্ত লেনদেন আর্থিক কার্যক্রমে অবৈধ এবং এর মাধ্যমে লেনদেনে কঠোরভাবে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হলো।’    

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, আর্থিক ব্যবস্থার ওপর ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির নিয়ন্ত্রণ যেন দুর্বল না হয় এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া পিপলস ব্যাংক অব চায়না চীনা মুদ্রা ইউয়ানের ইলেকট্রিক সংস্করণ লৈতরির কাজ করছে। যা দিয়ে লেনদেন করা যাবে এবং এর নিয়ন্ত্রণও থাকবে বেইজিংয়ের হাতে।

মানবকণ্ঠ/এমএইচ