manobkantha

সময় টিভির চিত্র সাংবাদিককে মারধর, থানায় মামলা

ঢাকার সাভারে একটি অনুমোদনহীন বহুতল ভবনের সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে সন্ত্রাসী হামলা ও মারধরের শিকার হওয়া সময় টিভির চিত্র সাংবাদিক থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এঘটনায় গ্রেপ্তার তিন আসামিকে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে আশুলিয়া থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ২-৩জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন চিত্র সাংবাদিক মনির হোসেন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন, ভোলা জেলার সদর থানার পাঙ্গসা গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে আব্দুস সোবহান, পাবনা জেলার সুজানগর থানার মানিকহাট গ্রামের ইসলাম মন্ডলের ছেলে রবিউল ইসলাম ও মো. ফারুক। তারা সবাই আশুলিয়ার কবরস্থান রোড এলাকার আমিন মডেল টাউন এলাকার বাসিন্দা।

মামলার এজাহারে বলা হয়, আশুলিয়ার আমিন মডেল টাউন এলাকার মারজান টাওয়ার নামে অনুমোদনহীন নয়তলা ভবনের সংবাদ সংগ্রহে যান ওই সাংবাদিক। এসময় তার উপর হামলা চালিয়ে তাকে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে নিলাফোলা জখম করে সন্ত্রাসীরা। সময় টিভির ক্যামেরা ও বুম ভাঙচুর করা হয়। গাড়ি চালক রাশেদ এগিয়ে আসলে তাকেও মারধর করা হয়। ভেঙ্গে ফেলা হয় মোবাইল ফোন। তবে পুরো ঘটনাটি ধারণ হয় সিসিটিভিতে।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শফিউল্লাহ শিকদার বলেন, 'ভুক্তভোগী সাংবাদিক বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তার করা হয়েছে তিনজনকে। দুপুরে তাদের ঢাকার মুখ্য বিচারিক আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে সময় টেলিভিশনের চিত্র সাংবাদিক মনির হোসেনকে মারধর ও লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে আশুলিয়া প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা।

উল্লেখ্য, সাভার ক্যান্টনমেন্ট এক্সিকিউটিভ অফিসের আওতাধীন নয়তলা ভবনটি অনুমোদনহীন ছাড়াই ৫২ জন মিলে যৌথ ভাবে নির্মাণ করেন। পরে গত ২ জানুয়ারী অনুমোদন ছাড়া ভবনটি নির্মাণ করায় সাভার ক্যান্টনমেন্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার (উপ-সচিব) মোহাম্মদ বশিরুল হক ভুঞা স্বাক্ষরিত এক নোটিশে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। নির্মাণকাজ বন্ধসহ ভবনের বাসিন্দাদের ১০ দিনের মধ্যে ভবন ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয় নোটিশে। এরপর ৩ ফেব্রুয়ারি ভবন মালিকদের পক্ষে শারাফাত আলী অনুমোদন ছাড়া ভবন নির্মাণের কথা স্বীকার করে ক্যান্টনমেন্ট বরাবর ক্ষমা চেয়ে একটি আবেদন করেন। পরবর্তীতে মালিকপক্ষ উচ্চ আদালতের সরণাপন্ন হন বলে জানা গেছে।

মানবকণ্ঠ/এমএ