manobkantha

পদক জিতে ৩৪ হাজার মানুষের দেশ সান মারিনোর বিশ্বরেকর্ড

রেকর্ড ভেঙে রেকর্ড গড়েই চলছে টোকিও অলিম্পিক। এবার অনন্য এক রেকর্ডের জন্ম দিল সান মারিনো। দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নারীদের ট্র্যাপ শুটিংয়ে দেশটির শুটার আলেসান্দ্রা পেরিলি জিতেছেন ব্রোঞ্জ।

আর তাতেই ৩৪ হাজার মানুষের দেশ সান মারিনো উঠে গেছে ইতিহাসের পাতায়। গ্রীষ্মকালীন হোক কিংবা শীতকালীন, অলিম্পিকের ইতিহাসে যে এর চেয়ে কম আয়তনের কিংবা কম জনসংখ্যার কোনো দেশ পদক জেতেনি আর!

জনসংখ্যার দিক থেকে এ রেকর্ডটা ছিল লিচেনস্টেইনের দখলে, যারা এ পর্যন্ত ১০টা অলিম্পিক পদক জিতেছে। আর আয়তনের দিক থেকে এর আগের রেকর্ডটা ছিল বারমুডার, যারা দুদিন আগেই জিতেছিল নারী ট্রায়াথলনের পদক। ফ্লোরা ডাফির জেতা সে পদকটা অবশ্য ছিল সোনা। তবে সোনা না হলেও সান মারিনোয় পেরিলির এই ব্রোঞ্জ জয় এনে দিয়েছে খুশির জোয়ার। উত্তর ইতালির ভেতরে অবস্থিত স্থলসীমান্ত ঘেরা দেশটিতে যে আর কখনো যায়নি কোনো অলিম্পিকের পদক!

পেরিলির বাবা অবশ্য মেয়ে সোনা জিতেছে তাতেই খুশি, অত রেকর্ডে মন নেই তার। তিনি বললেন, ‘আমরা শেষ দুই রাতে ঘুমাইনি। সবকিছু সরাসরি দেখলাম আমরা। আর যখনই জানলাম আমরা পদক জিতে গেছি, তখন আমরা কেঁদেই ফেলেছিলাম।’

এর আগে ২০১২ সালে খুব কাছে গিয়েও পদক জেতা হয়নি তার। সেবার লন্ডন অলিম্পিকে তিনি হয়েছিলেন চতুর্থ। সে আক্ষেপ ঘুচেছে এবার, তাতে পেরিলির প্রতিক্রিয়া, ‘যখনই চতুর্থ শুটার শুট শেষ করেছিল, তখনই আমার মনে হয়েছি, আর চতুর্থ হওয়া চলবে না আমার, আমাকে করে দেখাতেই হবে। এটা আমার দেশের আর আমার জন্য প্রথম পদক। আমরা খুবই ছোট একটা দেশ, কিন্তু এখন আমরা খুবই গর্বিত।’

মানবকণ্ঠ/আরআই