manobkantha

করোনা রোগীর ছুরিকাঘাতে আহত নার্স মিতুর অবস্থা আশঙ্কাজনক

রাজধানীর উত্তরায় শিন-শিন জাপান হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসা নিচ্ছেন করোনা রোগীর ছুরিকাঘাতে আহত নার্স মিতু। এছাড়াও ছুরিকাঘাতে আহত দুই নার্স ও এক ওয়ার্ড বয়ও সেখানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে মিতুর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

তিনি জানান, আহত নার্সের শরীরের কন্ডিশন ভালো না। তাকে ৪ বার ছুরিকাঘাত করায় তার লিভার, ইন্টেস্টাইন মারাত্মক ভাবে জখম হয়েছে। তিনি এখন আইসিইউতে আছেন।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) গভীর রাতে হঠাৎ করে করোনা রোগী সবুজ (২৪) আইসিইউতে থাকা ফল কাটার ছুরি দিয়ে নার্স মিতু এবং কাকলিকে পেটে আঘাত করে। পরে ওয়ার্ড বয় সাগর রোগীর হাত থেকে ছুরি কেড়ে নিতে গেলে তাকেও আঘাত করে সবুজ। ঘটনার পরদিন হসপিটাল কর্তৃপক্ষ পশ্চিম থানায় রোগী সবুজকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করেন। ‍সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, করোনা রোগী সবুজ হঠাৎ করেই নার্স এবং ওয়ার্ডবয়ের উপর হামলা করেন।

ঘটনার পরদিন সকালে রোগীকে তার স্বজনরা শিন শিন জাপান হসপিটাল থেকে গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যায়। ২৭ জুলাই করোনায় তার মৃত্যু হয়।

পুলিশের উত্তরা বিভাগের উপ- পুলিশ কমিশনার সাইফুল ইসলাম জানান , উত্তরার শিন-শিন জাপান হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন করোনা রোগী সবুজ গত বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে নার্সদের কাছে ঘুমের ঔষধ দিতে বলে। কিন্তু কর্তব্যরত নার্স মিতুতাকে ডাক্তারের অনুমতি ব্যতীত তাকে ঘুমের ঔষধ দেয়া যাবে না বলে জানায়। এর প্রায় ১ ঘন্টা পর কিছু একটা প্রয়োজন বলে নার্সকে ডাকে। পরে নার্স মিতু আসার সাথে সাথেই তাকে ছুরিকাঘাত করা শুরু করে।

মানবকণ্ঠ/আরআই