manobkantha

মাল্টার কারাগারে ১৮ মাস বন্দী ১৬৫ বাংলাদেশির মুক্তি চেয়েছে আয়েবা

ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে আসা ১৬৫ জন বাংলাদেশি দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে মাস্টার কারাগারে বন্দী। তাদের মুক্তির ব্যাপারে অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন (আয়েবা) সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মক'র্তাদের সাথে বৈঠক করেছে। মানবিক কারণে তাদের মুক্তির ব্যাপারে আশাবাদী আয়েবা।

প্রতিদিনই ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অ'বৈ'ধ শরণার্থীরা ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের মধ্যে দ্বীপরাষ্ট্র মাল্টায় আ'ট'ক ১৬৫ জন বাংলাদেশি ১৮ মাস ধরে কারাগারে বন্দী। তাদের মুক্তির ব্যাপারে অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন এগিয়ে এসেছে।

সংগঠনের মহাসচিব কাজী এনায়েত উল্লাহর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল মাল্টায় গিয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্রসচিবসহ উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক করেছে। সরকারের পক্ষে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পার্মানেন্ট সেক্রেটারি কেভিন মাহোনে, নিরাপত্তা ও আইন প্রয়োগ সংস্থার কর্মক'র্তা রায়ান এসপানিয়ল, ডিটেনশন সেন্টারের মহাপরিচালক রবার্ট ব্রিংকাউ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

অত্যন্ত বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে দীর্ঘ আড়াই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে আয়েবা এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে মহাসচিব কাজী এনায়েত উল্লাহ ছাড়াও সহ-সভাপতি ফকরুল আকম সেলিম, আহমেদ ফিরোজ ও আয়েবার নিযু'ক্ত আইনজীবী এতিয়েন কালেয়া উপস্থিত ছিলেন।

কাজী এনায়েত উল্লাহ বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে আমরা কি ফলপ্রসূ বৈঠক করেছি। যদিও তারা অবৈধ শরণার্থীকে উৎসাহিত করতে চায় না। তবে বৈধভাবে শ্রমিক আনার ক্ষেত্রে একমত পোষণ করেন।

তিনি বলেন, আমরা মানবিক কারণে এই আটক বাংলাদেশীদের মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।

আইনজীবী আকম সেলিম ও আহমেদ ফিরোজ মনে করেন, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আইন এর মধ্য দিয়েই এই শরণার্থীদের মুক্তি সম্ভব।

পরে আয়েবার প্রতিনিধিদল মাল্টার কারাগার পরিদর্শন করেন। যোগাযোগ অব্যাহত থাকবে এবং প্রয়োজনে আবারও তারা মাল্টায় যাবেন বলে জানান।

মানবকণ্ঠ/ডিএ/এসকে