manobkantha

সিরিয়ায় মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে রকেট হামলা

সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় দেইর আজ-জোর প্রদেশে অবৈধভাবে স্থাপিত মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে রকেট হামলা হয়েছে। সোমবার (২৮ জুন) রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশে ইরাক-সিরিয়া সীমান্তবর্তী এলাকায় ইরাকি প্রতিরোধ যোদ্ধাদের অবস্থানে বিমান হামলা চালায় মার্কিন সেনারা। হামলার ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে সিরিয়ায় মার্কিন ঘাঁটি আক্রান্ত হলো।

মার্কিন সমর্থিত কুর্দি বিদ্রোহী গোষ্ঠী এসডিএফ নিয়ন্ত্রিত ‘ওমর’ গ্যাসক্ষেত্রের কাছে এ রকেট হামলা হয়েছে।

সিরিয়া সরকারের অনুমতি বা জাতিসংঘের অনুমোদন ছাড়াই দেশটিতে অবৈধভাবে মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে।

অন্যদিকে ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করার জন্য ইরাকি পার্লামেন্টে আইন পাস হওয়া সত্ত্বেও জোর করে দেশটিতে সেনা মোতায়েন করে রেখেছে আমেরিকা।

এর আগে রোববার মার্কিন যুদ্ধবিমান থেকে ইরাক-সিরিয়া সীমান্তবর্তী তিনটি স্থানে ইরাকি প্রতিরোধ যোদ্ধাদের অবস্থানে বোমাবর্ষণে পাঁচজন প্রাণ হারান।

পেন্টাগনের দাবি— এসব অবস্থান থেকে মার্কিন ঘাঁটি লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা পরিচালনা করা হয়।

ইরাকের আধাসামরিক বাহিনী হাশদ আশ-শাবির ১৪তম ব্রিগেডের সদর দপ্তরে রোববারের মার্কিন বিমান হামলায় চার ইরাকি যোদ্ধা নিহত হয়েছেন।

তাৎক্ষণিকভাবে ওই হামলার প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দিয়েছিল হাশদ আশ-শাবি। এ ছাড়া ইরাকি প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-কাজেমি মার্কিন বিমান হামলাকে ইরাকের সার্বভৌমত্বের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে এর নিন্দা জানিয়েছেন।

সিরিয়ায় মার্কিন সন্ত্রাসী সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল ওয়াইন মরোট্টো জানিয়েছেন, সোমবার স্থানীয় সময় রাত পৌনে ৮টায় সিরিয়ায় মোতায়েন মার্কিন বাহিনীর ওপর কয়েক দফা রকেট হামলা হয়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। সূত্র: সিএনএন, রয়টার্স ও আলজাজিরার।

মানবকণ্ঠ/এমএ