manobkantha

একে একে তিন বোনের সঙ্গে সংসার হক চৌধুরীর

একে একে তিন বোনকে বিয়ে করেছেন আবদুল হক চৌধুরী। তবে তিন বোনকে বিয়ে করার পেছনে রয়েছে কষ্টের এক কাহিনি। বলতে গেলে নিরুপায় হয়েই এসব বিয়ে করেন তিনি।

আবদুল হক চৌধুরীর বাড়ি ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার বগাদানা ইউনিয়নের গুনক গ্রামে। তার বাবার নাম আবদুল কাদের। তিনি চাটার্ড লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানির ফেনীর সাউথ অফিসের ইউনিট ম্যানেজার।

জানা গেছে, ১৯৯৫ সালের ১৪ ডিসেম্বর একই ইউনিয়নের বাদুরিয়া গ্রামের সেকান্তর বাদশার বড় মেয়ে সবুরা খাতুনকে বিয়ে করেন আবদুল হক। বিয়ের পর তাদের সংসারে দুটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়।

প্রায় ১৯ বছর সংসার শেষে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে সবুরা মারা যান। এর কয়েক মাস পর দুই পরিবারের সম্মতিতে সবুরার ছোট বোন রাশেদাকে বিয়ে করেন তিনি।

এ সংসারেও একটি কন্যা সন্তান হয়। কিন্তু ছয় বছর সংসার করার পর রাশেদাও অসুস্থ হয়ে মারা যান। পরপর দুই স্ত্রীর মৃত্যুতে হতাশ হয়ে পড়েন আবদুল হক চৌধুরী। শোকের ছায়া নেমে আসে দুই পরিবারে।

দুই স্ত্রী হারিয়ে তিন এতিম মেয়ে নিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় দিন কাটছিল আবদুল হক চৌধুরীর। মা-খালার মৃত্যুতে মেয়েরা থাকতে শুরু করে নানার বাড়িতে। এদিকে স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় আবদুল হক চৌধুরীর স্ত্রীর মেজো বোন খাদিজার সংসার ভেঙে যায়।

একপর্যায়ে এতিম মেয়েদের কথা চিন্তা করে দুই পরিবারের সম্মতিতে আবদুল হক চৌধুরীর কাছে খাদিজাকে বিয়ে দেন। সেই অনুযায়ী চলতি বছরের মে মাসে তাদের বিয়ে হয়।

এ ব্যাপারে আবদুল হক চৌধুরী বলেন, আল্লাহ আমাকে কঠিন থেকে কঠিনতম পরীক্ষা করছে। পরপর দুই স্ত্রীকে হারিয়ে এতিম মেয়েদের নিয়ে কঠিন সময় পার করছি। আল্লাহর রহমত, মা-বাবা ও এলাকাবাসীর দোয়া এবং দুর্দিনে শ্বশুরের পরিবারের লোকজন পাশে থাকায় এখনো টিকে আছি।

মানবকণ্ঠ/আরআই