manobkantha

গুরুদাসপুরে গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপের অভিযোগ যুবকের বিরুদ্ধে

নাটোরের গুরুদাসপুর পৌর সদরের গুরুদাসপুর বাজার পাড়া এলাকায় পান্না খাতুন (৩০) নামে এক গৃহবধূকে মারধর করে এসিডে ঝলসে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মিলন হোসেন (২৮) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে গুরুদাসপুর বাজার এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

পান্না খাতুন গুরুদাসপুর বাজার এলাকার বাসিন্দা শফিকুল ইসলামের স্ত্রী। এসিডে ওই গৃহবধূর দুই হাতের কব্জি ঝলসে গেছে। পান্না বর্তমানে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন।

পান্না খাতুন বলেন, স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর না দেওয়ায় আমাকে মারধর করে এসিড নিক্ষেপ করেন মিলনসহ ৪জন।

অভিযুক্ত মিলন গুরুদাসপুর পৌরসভা সদরের চাঁচকৈড় বাজার পাড়া মহল্লার কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুস সামাদের ছেলে।

পান্নার স্বামী বলেন, সম্প্রতি আমার স্ত্রীর মাধ্যমে স্থানীয় একটি এনজিও থেকে ৯৯ হাজার টাকা লোন তুলি। সে সময় টাকা তুলতে মিলন আমাকে সহযোগিতা করেন। এরপর থেকে মিলন বিভিন্নভাবে আমাদের কাছ থেকে টাকা পাবেন বলে মিথ্যা প্রচার চালানো শুরু করেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়িতে হামলা চালিয়ে আমার স্ত্রীকে মারধর করে ও এসিড নিক্ষেপ করে দুই হাত ঝলসে দিয়েছে মিলনসহ আরও ৪ জন।

এসব বিষয়ে অভিযুক্ত মিলন বলেন, আমার বড় ভাই পান্না খাতুনের নিকট ৬ লাখ টাকা পান। ওই টাকা না দেওয়ার জন্যই পান্না খাতুন এসিডের নাটক সাজিয়েছে। ঘটনার সময়ে আমি চাঁচকৈড় বাজারে ছিলাম। উক্ত পান্না খাতুনের নিকট হতে টাকা ফেরত পাওয়ার বিষয়ে থানা এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের নিকট শালিস হয়েছে। উক্ত ঘটনা সঠিক তদন্তের দাবি জানান তিনি।

এ ব্যাপারে গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মানবকণ্ঠ/এনএস