manobkantha

দেশকে উন্নতির চরম শিখরে নিয়ে গেছে আওয়ামী লীগ: জাহাঙ্গীর কবির নানক

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলছেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করছে, কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ করছে, মেট্রোরেল নির্মাণ করছে। যে বাংলাদেশকে অন্ধকারের মধ্যে ফেলে দিয়েছিল খালেদা জিয়া, সেই বাংলাদেশ আলোয়ে ঝলমল করছে। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে বাংলাদেশ তার লক্ষ্যে পৌঁছেছে। আমরা বলতে পারি, আওয়ামী লীগই এই দেশকে উন্নতির চরম শিখরে নিয়ে গেছে।

আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মানবকণ্ঠের সঙ্গে একান্ত আলাপনের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন যখন যাত্রা শুরু, আওয়ামী লীগ তখন আওয়ামী মুসলিম লীগ হিসেবে ছিলো। পরবর্তীকালে একটি অসাম্প্রদায়িক দলের প্রয়োজনীয়তায় এই দলটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। এই দলটি বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলন থেকে শুরু করে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন ঘাতপ্রতিঘাতের দীর্ঘ পথ পেরিয়ে এসেছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যে লক্ষ্য ছিলো পরাধীন জাতিকে মুক্ত করা, স্বাধীন করা। তিনি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে এই কাজটি সু-সম্পন্ন করেছেন। শক্তিধর পাকিস্তানী সেনাবাহিনীকে পরাজিত করে দেশ স্বাধীন করেছি। এই জাতি বঙ্গবন্ধুকে হারিয়েছে। এই হারানোর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে একটি পাকিস্তানে পরিণত করা, একটি জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করার চেষ্টা করা হয়। জেনারেল জিয়া, জেনারেল এরশাদ থেকে শুরু করে বেগম খালেদা জিয়া পর্যন্ত সবাই চেষ্টা করেছে চেতনার মুক্তিযুদ্ধের অর্জিত বাংলাদেশকে ধুয়ে-মুছে একটি দ্বিতীয় পাকিস্তান বানাতে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এই সদস্য বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ আন্দোলনকে তীব্র করে মানুষের ভোট ও ভাতের সংগ্রামে বিজয়ী হয়। এই বিজয়ী হতে গিয়ে দীর্ঘপথ পরিক্রমায় আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মীকে জীবন দিতে হয়েছে। আজ আওয়ামী লীগ শেখ হাসিনার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন। সেই রাষ্ট্র একটি ডিজিটাল রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি আজকে দেখতে পারছেন। বাংলাদেশ আজ সারা বিশ্বে একটি রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে যে বাংলাদেশ একদিন বিদেশি কর্যের উপর নির্ভরশীল ছিল, বিদেশি ঋণের উপর নির্ভরশীল ছিল- সেই দেশটি আজ বিদেশকে ঋণ দেয়ার মতো শক্তি অর্জন করেছে। সামর্থ্য অর্জন করেছে।

মানবকণ্ঠ/এনএস