manobkantha

বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ আলী এখন আ’লীগের সহ-সভাপতি!

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার ভেলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী। ২০১৬ সালে তিনি ছিলেন ওই উপজেলায় বিএনপি’র সভাপতি। গত ১৭ জুন জেলা আওয়ামী লীগের প্রকাশিত কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে স্থান পেয়েছেন তিনি।

দলে যোগদানের ৫ বছরের মধ্যে জেলা কমিটিতে সহ-সভাপতি’র মত গুরুত্বপূর্ণ পদবী পাওয়া নিয়ে নানা আলোচনা সমালোচনা দেখা দিয়েছে। তবে মোহাম্মদ আলীর দাবি, তিনি যখন আওয়ামী লীগে যোগদান করেন তখন প্রতিশ্রুতি ছিলো তাকে জেলা কমিটিতে রাখা হবে। সেই প্রতিশ্রুতিতে তাকে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি করা হয়েছে।

এ দিকে কমিটিতে উপযুক্ত পদ না পাওয়ায় ওই কমিটি’র যুগ্ম সম্পাদক গোলাম মেস্তফা স্বপনের সমর্থকরা লালমনিরহাট-রংপুর সড়ক অবরোধ করেন। শনিবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার তিস্তায় সড়ক অবরোধ করে টায়ারে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ করেন তার সমর্থকরা।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বর লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে লালমনিরহাট-১ আসনের এমপি মোতাহার হোসেনকে সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমানকে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে ঘোষণা দেয়া হলেও দীর্ঘ দিনেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন হয়নি। পরে গত ১৭ জুন ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি অনুমোদন দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ওই কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগদানকারী ভেলাবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলীর নাম নিয়ে শুরু হয় নানা আলোচনা ও সমালোচনা। মোহাম্মদ আলী ২০১৬ সালের ১৮ মার্চ তৎকালীন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বর্তমানে পুর্ণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহম্মেদের হাতে ফুল দিয়ে বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে অনুষ্ঠানিক ভাবে যোগদান করেন।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, মোহাম্মদ আলী ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের সাথে জড়িত ছিলেন। ১৯৮১ সালে ছাত্রলীগের প্যানেলে লালমনিরহাট সরকারি কলেজের ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৯০ সালে প্রথম বারের মত ভেলাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন।

চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর লালমনিরহাট- ২ আসনের তৎকালীন এমপি জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রায়ত মজিবর রহমানের সাথে তার সু-সর্ম্পক গড়ে উঠে। ২০০১ সালের পর বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের তৎকালীন উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলুর হাত ধরে বিএনপিতে তার পথ চলা শুরু হয়। অল্প সময়ের মধ্যে আদিতমারী উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান মোহাম্মদ আলী।

ভেলাবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী বলেন, আমি ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি। আমি ছাত্রলীগ থেকে লালমনিরহাট সরকারি কলেজে ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পদক নির্বাচিত হয়েছিলাম। ২০১৬ সালে যখন আওয়ামী লীগের যোগদান করি তখন প্রতিশ্রুতি ছিলো আমাকে জেলা কমিটিতে রাখা হবে। সেই প্রতিশ্রুতে আমি জেলা কমিটিতে সহ-সভাপতি হয়েছি।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমানের সাথে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করা হলেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে জেলা আওয়ামী লীগের ১ নং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফ হোসেন বাদল বলেন, মোহাম্মদ আলীকে কি কারণে সহ-সভাপতি করা হয়েছে তা জেলা কমিটির সভাপতি ও সম্পাদক ভালো বলতে পাবেন। আমি শুধু বলব, মোহাম্মদ আলী ছাত্রলীগ থেকে লালমনিরহাট সরকারি কলেজে ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পদক নির্বাচিত হয়েছিলো। তারা পারিবারিক ভাবে আওয়ামী লীগের সাথে জড়িত। যোগদানের সময় কয়েক হাজার বিএনপি’র নেতা-কর্মীকে নিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। পর পর ৫ বার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়ে আসছেন। আগেও তিনি জেলা কমিটিতে ছিলেন। তার মূল্যায়ন করা প্রয়োজন বলে আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি।