manobkantha

বুর্কিনা ফাসোয় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ১৩০ গ্রামবাসী নিহত

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুর্কিনা ফাসোর উত্তরের একটি গ্রামে রাতভর হামলা চালিয়েছে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। এ হামলায় ওই গ্রামের অন্তত ১৩০ জন মানুষ নিহত হয়েছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি দেশটির প্রেসিডেন্ট রোসে কাবোরে বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স দেশটির সরকারের এক বিবৃতির বরাত দিয়ে জানিয়েছে, সোলহান নামের ওই গ্রামে সন্ত্রাসীরা রাতভর হামলা চালায় এবং গ্রামের মানুষদের হত্যা করে। হামলার সময় তাদের ঘরবাড়ি এবং দোকানপাটও পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

তবে এ ঘটনায় এখনও কেউ বা কোনো জঙ্গিগোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি। যদিও দেশটিতে বিশেষ করে নাইজার ও মালি সীমান্তবর্তী এলাকায় ইসলামপন্থী জঙ্গিদের এই ধরনের হামলা প্রায়শ দেখা যায়।

প্রেসিডেন্ট কাবোরে এক টুইট বার্তায় এই ঘটনায় তিন দিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’ নিরাপত্তা বাহিনী বর্তমানে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করতে অভিযান চালাচ্ছে।’

এর আগে স্থানীয় সময় গত শুক্রবার রাতে অপর এক হামলায় সোলহানের ১৫০ কিলোমিটার উত্তরে তাদেরিয়াত গ্রামে ১৪ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। গত মাসে বুর্কিনা ফাসোর পূর্ব দিকে এক হামলায় ৩০ জন নিহত হয়েছিলেন।

এই অঞ্চলের বেশিরভাগ জায়গায় সশস্ত্র গোষ্ঠীদের হামলা ও অপহরণের কারণে দেশ হিসেবে বুর্কিনা ফাসো প্রতিবেশীদের মতো গভীর নিরাপত্তা সঙ্কটের মুখোমুখি হচ্ছে। সশস্ত্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে দেশটি।

২০১২ ও ২০১৩ সালে জঙ্গিগোষ্ঠী মালির উত্তরে বিরাট অঞ্চল দখল করার পর থেকে আফ্রিকার আধা-শুষ্ক অঞ্চল সাহেলে বিদ্রোহ দেখা দেয়।

জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মালি, চাঁদ, মরিতানিয়া, নাইজার ও বুর্কিনা ফাসো থেকে সৈন্যদের সহায়তা দিচ্ছে ফ্রান্স বাহিনী। তবে মালির সাম্প্রতিক অভ্যুত্থানের পর থেকে তাদেরকে সহযোগিতা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স।

মানবকণ্ঠ/এনএস