manobkantha

উৎসব আনন্দে স্পেনে ঈদ উল ফিতর পালিত

স্পেনে জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ায় এবারের ঈদ উৎসব আমেজে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে।

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছর ঈদুল ফিতর এর নামাজ ঘরেই পরিবার পরিজন নিয়ে আদায় করেন। এবারও খোলা মাঠে ঈদের নামাজে অনুমতি না মিললেও মসজিদে মসজিদে নামাজ পরে মুসল্লিরা সন্তোষ প্রকাশ করেন।তবে সামাজিক দূরত্ব ,মাস্ক, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে নির্দেশনা এখনো রয়েছে।

সারা বছর ঘুরে ঈদের দিনে বাংলাদেশি অধ্যুষিত লাভাপিয়েছে এলাকা ঈদের নামাজের পর বাংলাদেশিদের পদচারণায় মুখরিত থাকে। এই এলাকায় বৃহৎ জামাত অনুষ্ঠিত হয় বাইতুল মোকাররম জামে মসজিদে। সকাল সাতটা ৩০ মিনিট থেকে শুরু হয় আটটা জামাত অনুষ্ঠিত হয়, এতে শায়খ হাসান বিন মোহাম্মদুল্লাহ প্রথম জামাতে ইমামতি করেন। তিনি খুৎবায় মুসলিম উম্মার শান্তি ,সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য বজায় রেখে স্পেনের আইন এর প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকার আহ্বান জানান। মজলুম ফিলিস্তিনিদের প্রতি প্রত্যেক মুসলমানদের বিশ্ব জনমত গড়ে তোলারও আহ্বান জানান।

হরযত শাহ জালাল লতিফিয়া ফুলতলী মসজিদে, চারটি জামাত, আল হুদা জামে মসজিদে চারটি, পুয়েন্তে ভায়াকাস ও খেতফাতে বাংলাদেশি পরিচালনাধীন মসজিদে জামাত। অপর বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা সান ক্রিষ্টবাল আল আমান জামে মসজিদ ও চারটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় ১০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করেন। পরিবার পরিজনহীন প্রবাসীরা একে অপরকে পেয়ে আবেগী হয়ে উঠেন।

এ সময় মুসল্লিদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, বায়তুল মুকাররম জামে মসজিদের সভাপতি খোরশেদ আলম মজুমদার, বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি এ কে এম জহিরুল ইসলাম প্রমুখ। এছাড়াও এখানে দূতাবাসের পক্ষ থেকে প্রথম সচিব উইং (শ্রম )মুহতাসিমুল ইসলাম।

এদিকে কূটনৈতিকদের সাথে ভেন্টাস মসজিদে নামাজ আদায় করেন ,রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারোয়ার মাহমুদ।

মানবকণ্ঠ/এসকে