manobkantha

জার্মানিতে দুই ডোজ টিকা নিয়েও আক্রান্ত কয়েক হাজার মানুষ

কোনোভাবেই যেন পরাস্ত করা যাচ্ছে না ‘পৃথিবী বিধ্বংসী’ মহামারি করোনাভাইরাসকে। বিশ্বব্যাপী টিকাদান কার্যক্রম পুরোদমে চললেও অদৃশ্য এ ভাইরাস থেকে যেন রেহাই পাওয়া অসম্ভব। এমনকি করোনার টিকার দুই ডোজ গ্রহণের পরেও মুক্তি মিলছে না ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে।

দুই ডোজ টিকা গ্রহণের পরেও জার্মানিতে কয়েক হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। জার্মানির তিনটি অঙ্গরাজ্যের এ চিত্রে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগসহ টিকা উৎপাদন এবং সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।

জার্মানির স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সূত্রমতে, গত কয়েক দিনের ব্যবধানে জাক্সেনে ২০২ জন, জাক্সেন আনহাল্টে ১১২ জন এবং থুইরিঙ্গেনে কমপক্ষে ৯৪ জনের শরীরে নতুন করে করোনার উপসর্গ ধরা পড়ে।

করোনায় আক্রান্তরা টিকার দুটি ডোজই গ্রহণ করেছিলেন বলে জানা গেছে। এ অবস্থায় স্থানীয়রা অঙ্গরাজ্যগুলোতে সরবরাহ করা করা টিকার মান ও স্থায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

স্থানীয় একজন বলেন, দেখুন অঙ্গরাজ্যগুলোতে যে ধরনের টিকা সরবরাহ করা হয়েছে তাতে আমরা অসন্তুষ্ট। শুধু টিকা নয়, বর্তমানে ক্ষমতাসীন সরকার করোনা নিয়ে জনগণের সঙ্গে যে রাজনীতি করছে তা অগ্রহণযোগ্য।

খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে তৈরি করা টিকাগুলোর কোনোটিই যে করোনা থেকে শতভাগ সুরক্ষা দেবে না, সে বিষয়ে আগেই বার্তা দিয়েছিলেন জার্মান ভ্যাকসিন বিশেষজ্ঞরা। তাই টিকা নেওয়ার পরও সুরক্ষাবিধি মেনে চলার আহ্বান তাদের।

জার্মান ভ্যাকসিন বিশেষজ্ঞ বলেন, আমি বাংলাদেশের বন্ধুদের বলতে চাই, দয়া করে করোনাকে অবহেলা করবেন না। করোনা সত্যিই মারাত্মক একটা মহামারি, যে অবস্থায় থাকুন না কেন সুরক্ষাবিধি মেনে চলুন, ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে টিকা নিন, বেঁচে থাকুন।

এদিকে টিকা নিয়েও করোনায় আক্রান্ত হওয়া ঘটনায় বিব্রত অঙ্গরাজ্যগুলোর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও স্থানীয় প্রশাসন।

মানবকণ্ঠ/এনএস