manobkantha

সিরাজদিখানে অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ অভিযান

মানবকণ্ঠ
ছবি

সিরাজদিখান উপজেলায় আবাসন এলাকার এক কিলোমিটারের ভিতরে গড়ে ওঠা অবৈধ ইটভাটা এবং সনাতন উপায়ের চিমনি দিয়ে গড়ে উঠা ইটভাটাগুলো উচ্ছেদ অভিযানে আজ থেকে মাঠে নামছে কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, হাই কোর্টের নির্দেশের পর থেকে নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। জেলার অধিকাংশ ইটভাটার স্থান সিরাজদিখান উপজেলায় হওয়াতে এই সিরাজদিখান দিয়েই শুরু হচ্ছে উচ্ছেদ অভিযান।

সিরাজদিখান ইটভাটা সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল মান্নান বলেন,আমাদের ইটভাটা সমিতির আওতাভুক্ত সিরাজদিখানে ভাটা সংখ্যা মোট ৫৫টা। এই ভাটাগুলো থেকে প্রশাসন অবৈধ ঘোষণা করেছে ৩৭টা। কিন্তু আমাদের জরিপ মতে এই উপজেলায় অবৈধ ইটভাটার সংখ্যা বেশী হলে ৫/৭টা হবে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় ফসলি জমিতে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই গড়ে উঠছে একের পর এক ইটভাটা। এসব ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় একদিকে স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে পড়েছে ভাটার পাশের বাসিন্দারা। অন্যদিকে ফসলি জমি হারিয়ে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন অনেক কৃষক।অর্ধশতাধিক ইটভাটার বিষাক্ত কালো ধোঁয়া ও বর্জ্যে বিপন্ন হচ্ছে সিরাজদিখানের পরিবেশ। এতে ভাটার আশপাশের গ্রামীণ জনপদের জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়েছে।

পরিবেশ বিশেষজ্ঞদের মতে, ইটভাটার সৃষ্ট দূষণে বয়স্ক ও শিশুরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ইটভাটার কালো ধোঁয়ার কারণে মানুষের ফুসফুসের সমস্যা, শ্বাসকষ্ট ও ঠান্ডাজনিত নানা রোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বদিউজ্জামান বলেন, 'ইটভাটার কালো ধোঁয়ার কারণে মানুষের শ্বাসকষ্ট হতে পারে। ফুসফুসে বিভিন্ন রোগ দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া ধুলাবালু থেকে অ্যালার্জি, চুলকানিসহ বিভিন্ন চর্মরোগ হতে পারে। হাঁপানি রোগ দেখা দিতে পারে।'

উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের মধ্যে কেয়াইন, বাসাইল ও বালুচর ইউনিয়নে প্রায় ৫৫টির বেশি ইটভাটা রয়েছে। অধিকাংশ ইটভাটায় পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়াই চলছে ইট পোড়ানোর কাজ।

সিরাজদিখান ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি জয়নাল আবেদিন বলেন, সিরাজদিখানের ৩টি ইউনিয়নে প্রায় অর্ধশত ইটভাটা রয়েছে। এর মধ্যে কিছু বন্ধও আছে। ইটভাটা থেকে দূষণ হওয়ার কথা স্বীকার করে তিনি জানান, ইটভাটাগুলোতে চিমনির সঙ্গে এক ধরনের পানির ঝরনা ব্যবহার করলে এই দূষণ অনেকখানি কমিয়ে আনা সম্ভব। কিন্তু সেটি ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে অনেকে এতে আগ্রহী হচ্ছেন না।

এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. নয়ন মিয়া ও মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো: মনিরুজ্জামান তালুকদার জানান, হাই কোর্টের নির্দেশ মতে,অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ অভিযানে আজ থেকে মাঠে নামবে তাঁরা।

মানবকণ্ঠ/জেএস