৫-১২ বছরের শিশুরা পাচ্ছে করোনা টিকা


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৭ জুন ২০২২, ১৭:১০

চলমান করোনা মহামারির প্রকোপ রোধে শিশুদেরও টিকার আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। পাঁচ থেকে ১২ বছরের শিশুদের ফাইজারের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধনের মাধ্যমে শিশুরা এই টিকা পাবে।

আজ সোমবার (২৭ জুন) দুপুরে রাজধানীতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এই তথ্য জানান।

ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, শিশুদের যাদের জন্ম নিবন্ধন নেই, তাদের দ্রুত সময়ের মধ্যে করে তা করে নিতে হবে। এ ব্যাপারে অভিভাবকদের সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের এ কর্মকর্তা বলেন, ফাইজারের এই টিকা কোভ্যাক্সের মাধ্যমে পাবো। টিকা আসার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। টিকা হাতে পেলেই জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করে টিকা নেওয়া যাবে।

এদিকে বেঁধে দেওয়া সময়ের চার দিন আগেই করোনার টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ। দেশের ৭০ শতাংশ মানুষকে পূর্ণ দুই ডোজ টিকা দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। রোববার (২৬ জুন) টিকা দেওয়ার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ এ মাইলফলক স্পর্শ করল।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছিল, করোনা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে কমপক্ষে ৭০ শতাংশ মানুষকে পূর্ণ দুই ডোজ টিকার আওতায় আনতে হবে। এজন্য সময়সীমা নির্ধারণ করেছিল ২০২২ সালের ৩০ জুন। সময়সীমার চার দিন আগেই বাংলাদেশ এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে সক্ষম হয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের টিকার তথ্য বলছে, এ পর্যন্ত ১২ কোটি ৮৯ লাখ ৯৫ হাজার ৮০৯ জনকে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১ কোটি ৯১ লাখ ৯৯ হাজার ২৪৫ জন। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসাবে বাংলাদেশের জনসংখ্যা ১৭ কোটি তিন লাখের কিছু বেশি।

বাংলাদেশে ছয়টি প্রতিষ্ঠানের টিকা দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে আছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার, সিনোফার্ম, মডার্না, সিনোভ্যাক ও জনসন।

প্রাপ্তবয়স্কদের টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হওয়ার পর  এবার সরকার শিশুদেরও টিকার আওতায় আনতে চায়। সে লক্ষেই পাঁচ বছরের ওপরের শিশুদের ফাইজারের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

মানবকণ্ঠ/এআই


poisha bazar