লঞ্চের পর এবার গণপরিবহনও চালু

- ফাইল ছবি

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ৩১ জুলাই ২০২১, ২১:৩৫,  আপডেট: ০১ আগস্ট ২০২১, ০৯:৩১

রফতানিমুখী শিল্প-কারখানায় কাজে যোগ দিতে শ্রমিকদের পরিবহনের জন্য যাত্রীবাহী লঞ্চের পর এবার গণপরিবহন চালুর অনুমতি দিয়েছে সরকার। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে আগামীকাল রোববার দুপুর ১২টা পর্যন্ত এসব যানবাহন চলবে।

শনিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান গণমাধ্যমকে জানান, শ্রমিকদের স্বার্থে সরকার গণপরিবহন চলাচলের ওপর বিধি-নিষেধ শিথিল করেছে।

এর আগে, গার্মেন্টসহ সকল কলকারখানার শ্রমিকদের কর্মস্থলে ফিরতে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সব জেলা এবং শিমুলিয়া-বাংলাবাজার এবং দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে রবিবার (১ আগস্ট) দুপুর ১২টা পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিআইডাব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

কঠোর লকডাউনের মধ্যেই রপ্তানিমুখী সব শিল্পকারখানা রোববার থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে।কিন্তু গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় ঢাকায় কিংবা কর্মস্থলে ফিরতে পারছেন না মানুষ। ফলে যে যেভাবে পারছেন ছুটছেন। করোনার ভয়কে উপেক্ষা করে, স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে কর্মজীবী নারী-পুরুষ বাস-ট্রাকে গাদাগাদি করে এবং জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ছাদে ওঠে কর্মস্থলে যাচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশকে হিমশিম খেতে হচ্ছে লকডাউন মানাতে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গত ১ জুলাই থেকে এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। পরে সময়সীমা বাড়িয়ে ১৪ জুলাই পর্যন্ত করা হয়। এরপর ঈদুল আজহা উপলক্ষে কঠোর বিধিনিষেধ ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই ভোর ৬টা পর্যন্ত শিথিল করা হয়।

একইসঙ্গে ২৩ দফা নির্দেশনা দিয়ে ঈদের তৃতীয় দিন অর্থাৎ ২৩ জুলাই ভোর ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।যা এখনো চলমান। এই সময়ে সবকিছু বন্ধ থাকবে বলেও জানানো হয়।

মানবকণ্ঠ/এসকে


poisha bazar

ads
ads