লিবিয়া থেকে ফিরলো আরও ১৬০ বাংলাদেশি


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ মে ২০২১, ১৭:৪৩,  আপডেট: ০৫ মে ২০২১, ১৭:৫৮

লিবিয়ার বিপজ্জনক জীবন থেকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে এক নারী কর্মীসহ লিবিয়ায় আটকে পড়া ১৬০ প্রাবসী বাংলাদেশিকে। করোনা মহামারি ও দীর্ঘস্থায়ী রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে তারা লিবিয়ায় আটকা পড়েছিলো।

সরকারের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে স্বেচ্ছায় মানবিক প্রত্যাবর্তন (ভিএইচআর) কর্মসূচির আওতায় প্রবাসীদের ফিরিয়ে এনেছে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম)। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আইওএম বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মঙ্গলবার (৪ মে) এটি লিবিয়ার বেনগাজি শহর থেকে ছেড়ে আসা প্রবাসীদের বহনকারী বিমানটি বুধবার (৫ মে) ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, লিবিয়া প্রস্থানের আগে প্রত্যাবর্তনকারীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা, কাউন্সেলিং পরিষেবা, যাতায়াত, স্ক্রিনিংসহ প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেয় আইওএম। বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিবেচনা করে সব প্রত্যাবর্তনকারীকে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) দেওয়া হয় এবং প্রস্থানের আগে কোভিড-১৯ পরীক্ষা (পিসিআর) করা হয়।

ফিরে আসা এক অভিবাসী বলেছেন, লিবিয়ায় জীবন অত্যন্ত বিপজ্জনক ছিল। কারণ সেখানে প্রতিকূলতা অব্যাহত রয়েছে। সেখানে থাকতে খুব কষ্ট হচ্ছিল। পর্যাপ্ত অর্থ উপার্জন করতে না পারায় দেশে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

আইওএম জানায়, স্বেচ্ছায় মানবিক প্রত্যাবর্তন (ভিএইচআর) কর্মসূচি আটকে পড়া বা আটকে থাকা অভিবাসীদের বিশেষত দ্বন্দ্ব-সংঘাতগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য জীবন রক্ষাকারী। ২০১৫ সাল থেকে মোট ২ হাজার ৯৪২ জন বাংলাদেশি এই কর্মসূচির মাধ্যমে লিবিয়া থেকে বাংলাদেশে ফিরেছেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কোভিড- ১৯ পরিস্থিতিতে লিবিয়ায় আটকেপড়া অভিবাসীদের ফিরিয়ে আনার জন্য পরিচালিত নবম ফ্লাইট এটি। এসব ফ্লাইটে এ পর্যন্ত মোট এক হাজার ৩৭৯ জনকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এনএস


poisha bazar

ads
ads