নগরে বাস চলাচল স্বাভাবিক


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৭ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৩০,  আপডেট: ০৭ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৫১

করোনা ভাইরাসের মহামারি নিয়ন্ত্রণে লকডাউনের মধ্যেই ঢাকাসহ সব সিটি কর্পোরেশন এলকায় সকাল থেকে বাস চলাচল শুরু হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ভাড়া নির্ধারিত হারের চেয়ে ৬০ শতাংশ বেশি কার্যকর হয়েছে।

এর আগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সোমবার থেকে সারাদেশে মানুষের চলাচলের ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। এর আওতায় রিকশাছাড়া বাস, ট্রেন, লঞ্চসহ সব ধরনের গণপরিবহণ চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

ফলে সোমবার ও মঙ্গলবার এ দুদিন রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে গণপরিবহণ চলেনি। এতে সরকারি-বেসরকারি অফিস ও শিল্পকারখানা খোলা রাখার কারণে ভোগান্তিতে পড়েন সংশ্লিষ্ট যাত্রীরা। এ পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে চলাচলের নতুন এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে দূরপাল্লার বাস, আন্তঃনগর ট্রেন ও অভ্যন্তরীণ যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বাস চলাচলের বিষয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিদ্যমান পরিস্থিতিতে সরকারি-বেসরকারিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ও জনসাধারণের যাতায়াতে দুর্ভোগের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে গণপরিবহণ চলাচলের বিষয়টি শর্তসাপেক্ষে পুনর্বিবেচনা করে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এর আওতায় শুধু ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরসহ গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর এবং ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এলাকাধীন সড়কে সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গণপরিবহণ চলাচল করবে।

তিনি বলেন, প্রতিটি গণপরিবহণ ট্রিপের শুরু এবং শেষে জীবাণুনাশক দিয়ে জীবাণুমুক্ত করতে হবে। পরিবহণ শ্রমিক ও যাত্রীদের বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরিধান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। কোনোভাবেই সমন্বয়কৃত (নির্ধারিত ভাড়ার ৬০ শতাংশ) ভাড়ার অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা যাবে না। বুধবার থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়ে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

তিনি আরও বলেন, পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত দূরপাল্লায় গণপরিবহণ চলাচল যথারীতি বন্ধ থাকবে। এ সময় তিনি করোনা সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনা যথাযথভাবে পরিপালনে মালিক-শ্রমিক ও যাত্রীসাধারণের সহযোগিতা কামনা করেন।

 



poisha bazar

ads
ads