কক্সবাজারকে স্পোর্টস ট্যুরিজমের হাব হিসেবে গড়ে তোলা হবে: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

- ছবি: সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৩ মার্চ ২০২১, ২০:৪৫,  আপডেট: ০৩ মার্চ ২০২১, ২০:৫০

নৈসর্গিক সৌন্দর্য্যের জন্য বিখ্যাত পর্যটন অঞ্চল কক্সবাজারকে এবার স্পোর্টস ট্যুরিজমের হাব হিসেবে গড়ে তোলার কথা জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল।

তিনি বলেন, আমরা কক্সবাজারকে বিশ্ব দরবারে স্পোর্টস ট্যুরিজমের একটি হাব (hub) হিসেবে পরিগণিত করাতে চাই।

বুধবার (৩ মার্চ) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কক্সবাজার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়ামে এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী কক্সবাজার ইনডোর স্টেডিয়ামের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। একই সঙ্গে তিনি কক্সবাজার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়ামের অধিকতর উন্নয়ন কাজেরও আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারের পর্যটনকে বিকশিত করতে স্পোর্টসকে কাজে লাগাতে হবে। আর এ জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত উদ্যোগে এখানে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে স্টেডিয়ামের নকশা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। এর পাশেই আরও একটি আন্তর্জাতিক ফুটবল স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হবে। সেটির কাজ আমরা করেছি।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের তত্ত্বাবধানে ১৩ কোটি ৫৮ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে ইনডোর স্টেডিয়ামটি। আধুনিক এই স্টেডিয়ামটিতে ব্যাডমিন্টন, বাস্কেটবলসহ সকল ধরনের ইনডোর খেলার ব্যবস্থা থাকবে। স্টেডিয়ামটিতে দর্শক আসন সংখ্যা রয়েছে প্রায় ৫ শতাধিক। এছাড়া স্টেডিয়ামটিতে শরীর চর্চার জন্য জিম (ব্যায়ামাগার) থাকছে।

এছাড়া, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সার্বিক তত্তাবধানে কক্সবাজার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়ামের অধিকতর উন্নয়ন কাজে ব্যয় হবে ৭ কোটি ৩২ লাখ টাকা। এই কাজের মধ্যে রয়েছে নতুন গ্যালারী নির্মাণসহ বাউন্ডারি ওয়াল, অভ্যন্তরীণ ড্রেনেজ ব্যবস্থা, ওয়াকওয়ে ও মাঠের উন্নয়ন।

জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মো. মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আখতার হোসেন, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মো. মাসুদ করিম ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক প্রমুখ।

মানবকণ্ঠ/এসকে






ads
ads