প্রাপ্তবয়স্করাও যেখানে শিশু-কিশোর!


poisha bazar

  • জাহাঙ্গীর কিরণ
  • ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ১৫:৪৪

দেশের শিশু ও কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রগুলোতে চলছে চরম অব্যবস্থাপনা। শিশু ও কিশোর অপরাধীদের এই সংশোধনাগার অনিয়মে ভরপুর। সাজা কম পোহাতে প্রাপ্তবয়স্ক অনেকেই বয়স কম দেখিয়ে কিশোর সেজে এখানে ঠাঁই নিচ্ছে।

যে কারণে ধারণক্ষমতার তিনগুণ গাদাগাদি করে এখানে বসবাস করছে। এ অবস্থায় এই কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে প্রতিনিয়ত শিশু-কিশোরদের নানা সমস্যা রয়েছে বলে জানা যায়।

জাতীয় সংসদের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকের কার্যপত্র থেকে এ তথ্য জানা গেছে। সংসদ ভবনে গত রবিবার অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। কমিটির সদস্য সমাজ কল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, বদরুদ্দোজা মো. ফরহাদ হোসেন, সাগুফতা ইয়াসমিন, কাজী কানিজ সুলতানা, আরমা দত্ত এবং আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু বৈঠকে অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রগুলোতে কোনো ঘটনা ঘটলে তখন তদন্ত কমিটি করে কিছু একটা ব্যবস্থা নেয়া হয়। কিন্তু এসব কেন্দ্রে সমস্যা আছেই। এরমধ্যে অনেকগুলো ঘটনাই আমাদের সামনে এসেছে। গত আগস্ট মাসে যশোরে একটা ঘটনা ঘটেছে। প্রবেশন কর্মকর্তা নিয়ে সমস্যার কথা আইজিপি বলেছেন। ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বেশি নিবাসী রয়েছে। সেজন্য কমিটি বলেছে, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় একা নয়, স্বরাষ্ট্র ?ও আইন মন্ত্রণালয়কে সঙ্গে নিয়ে যাতে দ্রুত এসব কেন্দ্রের সার্বিক ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন করা যায়, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে।

তিনি বলেন, অনেকে অপরাধ করে সাজা কমানোর জন্য বয়স কম দেখায়। তখন কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে তাদের রাখতে হয়। এরাই ওখানে নানারকম সমস্যা তৈরি করে। সেজন্য জন্ম নিবন্ধন সঠিকভাবে করাটা গুরুত্বপূর্ণ। এ বিষয়গুলোও একা সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষে নয়।

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে গত আগস্টে তিন কিশোর হত্যার ঘটনা ঘটে। পরে ডিসেম্বর মাসে সেখান থেকে পালায় আট কিশোর। কমিটির বৈঠকে এসব বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

কমিটির কার্যপত্র থেকে জানা গেছে, যশোরের পুলেরহাটের শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের আসন সংখ্যা ১৫০। বর্তমানে সেখানে রয়েছে ৩৪৭টি শিশু-কিশোর।

সমাজসেবা অধিদফতরের তথ্যানুযায়ী, গাজীপুরের টঙ্গীতে আসন সংখ্যা ৩০০, সেখানে নিবাসীর সংখ্যা ৫৩৩। আর কোনাবাড়িতে মেয়েদের জন্য উন্নয়ন কেন্দ্রের আসন সংখ্যা ১৫০, সেখানে আছে ৮৩ জন। কমিটি কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রগুলোর আবাসন সংকট নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে পাশাপাশি শিশুদের কাউন্সিলিং কার্যক্রমের ওপর জোর দেয়ার এবং নিবাসীদের বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ দেয়ার সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দুস্থদের জন্য যে সকল কর্মসূচি/অনুদান ও ভাতা রয়েছে, তার একটি জাতীয়ভিত্তিক ডাটাবেজ তৈরির সুপারিশ করা হয়। এছাড়া বৈঠকে উপজেলাভিত্তিক সমাজসেবা অফিসগুলোকে একই কম্পাউন্ডে আনার সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে উত্তরাঞ্চলে রাজশাহী, পাবনা, ঠাকুরগাঁও জেলায় আদিবাসীরা যেন সমাজকল্যাণ অনুদান/ভাতা পায়, সেটি তদারকি করার সুপারিশ করা হয়।

 






ads
ads