করোনার ভ্যাকসিন আনার চুক্তি চারদিনের মধ্যে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৪০

চারদিনের মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন আনার জন্য উৎপাদন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ইউরোপে করোনা বৃদ্ধি পেয়েছে, বাংলাদেশেও শীতের সময় বৃদ্ধি পেতে পারে তাই সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

শনিবার দুপুর ১টার দিকে মানিকগঞ্জের সদর উপজেলার গড়পাড়ার শুভ্র সেন্টারের করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত, দরিদ্র ও কর্মহীন এক হাজার জনগণের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশের স্বাস্থ্যসেবা ভালো উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনেছে বলেই ভালো আছে। চার কোটি দরিদ্র মানুষকে করোনার সময় সরকার সহযোগিতা করেছে। অর্থনৈতিক অবস্থা সচল রাখতে সকল কারখানা খুলে দেয়া হয়েছে।

এদিকে গতকালের চেয়ে একজন কমে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ হাজার ৯২৩ জন। অন্যদিকে নতুন করে আরও ১ হাজার ৩২০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৭ হাজার ৬৮৭ জনে। শনিবার (৩১ অক্টোবর) বিকেলে করোনাভাইরাস নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

অপরদিকে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে গত ২৮ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আরো ৪৮ হাজার ২৬৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। প্রাণহানি হয়েছে ৫৫১ জনের।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, শনিবার পর্যন্ত ভারতে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা পৌঁছেছে ৮১ লাখ ৩৭ হাজার ১১৯ জনে। এছাড়া প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ২১ হাজার ৬৪১ জনে।

ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা থেকে সুস্থ এবং হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৭৪ লাখের বেশি মানুষ। দেশজুড়ে কোভিড-১৯ পরীক্ষার সংখ্যা বাড়িয়েছে ভারত সরকার।

অন্যদিকে আগের সব রেকর্ড ভেঙে বিশ্বব্যাপী সর্বোচ্চ সংখ্যক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৭৩ হাজার ছাড়িয়েছে। প্রাণহানি ঘটেছে ৭ হাজারেরও বেশি মানুষের।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকাল পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মৃত্যু হয়েছে ১১ লাখ ৯৩ হাজার ৭৪৪ জনের এবং আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৯৯ হাজার ৫১ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩ কোটি ৩২ লাখ ৪৮ হাজার ৯৪৪ জন।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, ২ লাখ ৩৫ হাজার ১৫৯ জন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। বিশ্বের ক্ষমতাধর এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৯৩ লাখ ১৬ হাজার ২৯৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় এবং মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় অবস্থানে আছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ লাখ ৩৬ হাজার ১৬৬ জন। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ লাখ ২১ হাজার ৬৮১ জন।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় তৃতীয় এবং মৃতের সংখ্যায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫ লাখ ১৯ হাজার ৫২৮ জন। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ লাখ ৫৯ হাজার ৫৬২ জন।

করোনায় মৃতের সংখ্যার দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে মেক্সিকো। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯০ হাজার ৭৭৩ জন। আর এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ৯ লাখ ১২ হাজার ৮১১ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে আছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৬ জন। আর মৃতের সংখ্যা ২৭ হাজার ৬৫৬ জন।

সুস্থতার দিক থেকে প্রথম অবস্থানে উঠে এসেছে ভারত (৭৪ লাখ ৩০ হাজার ৯১১ জন), দ্বিতীয় অবস্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র (৬০ লাখ ২৪ হাজার ৫১২ জন) এবং তৃতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল (৪৯ লাখ ৬৬ হাজার ২৬৪ জন)।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৫টি দেশে ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯। শীতের কারণে বিশ্বের অনেক দেশেই নতুন করে বাড়তে শুরু করেছে করোনার সংক্রমণ। এমন প্রেক্ষাপটে অনেক দেশেই জরুরি অবস্থা জারি করা হচ্ছে।






ads