দুই লাখ ৭ হাজার লোক দ্বৈত ভোটার হওয়ার চেষ্টা করছিল

- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:০৩,  আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:১২

ডাবল এনআইডিধারী লোক দুই লাখ শিরোনামে শুক্রবার দৈনিক মানবকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন (এনআইডি) অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাইদুল ইসলামের উদ্বৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, ‘ইতোমধ্যে ২ লাখ ৭ হাজার দ্বৈত ভোটার শনাক্ত করেছি। সবার বিষয়গুলো আমরা অবজার্ভ (পর্যবেক্ষণ) করছি। আমরা দেখছি, উদ্দেশ্য কী ছিলো?’

নির্বাচন কমিশনের আইডিইএ প্রকল্পের অফিসার ইনচার্জ কমিউনিকেশন স্কোয়াড্রন লীডার কাজী আশিকুজ্জামান জানিয়েছেন, তথ্যটি বুঝার ক্ষেত্রে ভুল হয়েছে। মূলত এখানে বলা হয়েছিল, ২ লাখ ৭ হাজার লোক দ্বৈত ভোটার হওয়ার চেষ্টা করছিল। কিন্তু এনআইডি কর্তৃপক্ষের তত্পরতায় হতে পারেনি।

তবে উদ্দেশ্যমূলকভাবে তথ্য গোপন করে দ্বৈত ভোটার হওয়ার প্রমাণ পাওয়ায় ইতোমধ্যে ৯২৭ জনের এনআইডি লক করাসহ ভোটার তালিকা আইন, ২০০৯ এর ধারা ১৮ এবং জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন, ২০১০ এর ধারা ১৪ ও ১৫ অনুসারে নির্বাচন কমিশন ফৌজদারি মামলা দায়ের করার নির্দেশনা দেয়া ছাড়াও জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন, ২০১০ এর ধারা ১৬ ও ১৭ অনুযায়ী দায়িত্বপ্রাপ্ত কোনো কর্মকর্তা/কর্মচারী দায়িত্বে অবহেলা করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার বিষয়টি ঠিক আছে বলে জানান তিনি। বিজ্ঞপ্তি

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads







Loading...