করোনার সরঞ্জাম কেনাকাটা দেখভালে ১১ সদস্যের কমিটি

করোনার সরঞ্জাম কেনাকাটা দেখভালে ১১ সদস্যের কমিটি
- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ আগস্ট ২০২০, ২২:০০

দেশে করোনার প্রকোপ শুরুর পর থেকে করোনার সরঞ্জাম কেনাকাটায় অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। তাই এবার করোনা মোকাবিলায় যেকোনও সরঞ্জাম কেনাকাটার বিষয়টি পরিচালনার জন্য স্ট্যান্ডার্ড অপরেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) প্রস্তুত করতে ১১ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে সরকার।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিবকে (হাসপাতাল) প্রধান (আহ্বায়ক) করে ১১ সদস্যের কমিটিতে সদস্য হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, অর্থ বিভাগ, সিপিটিইউ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর, কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের একজন করে প্রতিনিধি রাখা হয়েছে।

বুধবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করেছে। সেখানে এসব প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের বাইরেও কমিটিতে মুগদা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. টিটো মিয়া, ঢাকা মেডিকেল কলেজের কার্ডিওলোজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরীকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে।

সিএমএসডির পরিচালক কমিটিতে সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। তবে প্রয়োজনে কমিটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সদস্য হিসেবে কো-অপ্ট করতে পারবে বলেও আদেশে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব ড. বিলকিস বেগম স্বাক্ষরিত আদেশে কমিটির কার্যপরিধিতে (টিওআর) বলা হয়েছে, ১. এ কমিটি দীর্ঘমেয়াদী ক্রয় কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ক্রয় পরিকল্পনা প্রণয়ন করবে। ২. আগামী ছয় মাস থেকে এক বছরের মধ্যে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ব্যবহৃত মালামাল ক্রয় কার্যক্রমের পরিকল্পনা প্রণয়ন করবে। ৩. প্রয়োজনে কমিটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতামত গ্রহণ করতে পারবে। ৪. কমিটি কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ব্যবহৃত মালামালের সম্ভাব্যতা নির্ধারণ করে উপযুক্ত সিদ্ধান্ত প্রদান করবে। ৫. কমিটি তড়িঘড়ি পরিহার করার লক্ষ্যে পূর্বে থেকেই প্রয়োজনীয় মালামাল ক্রয়ের সুপারিশ করবে। ৬. মালামাল বা যন্ত্রপাতির গুণগত মান, পরিমাণ ও আর্থিক ক্ষতি রোধকল্পে উপযুক্ত নির্দেশনা প্রদান করবে। ৭. প্রয়োজনে কমিটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সদস্য হিসেবে কো-অপ্ট করতে পারবে।

মানবকণ্ঠ/আরএস





ads







Loading...