ঈদের দিন নামতে পারে বৃষ্টি


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০১ আগস্ট ২০২০, ০০:৪৮

সক্রিয় মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে শনিবার কোরবানির ঈদের দিন দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলে থেমে থেমে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। শুক্রবার রাতে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ আফতাব উদ্দিন।

তিনি বলেন, মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের উপর মোটামুটি সক্রিয়। দেশের অন্যত্র অপেক্ষাকৃত কম সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে। এর প্রভাবে শনিবার দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলে থেমে থেমে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। দেশের আকাশ মেঘলা থাকায় তাপমাত্রা সহনীয় পর্যায়ে থাকবে। তবে আবহাওয়া যেমনই থাকুক মহামারি যেন আর না বাড়ে আমরা এটাই আশা করি।

আবহাওয়াবিদ ড. মো. আবদুল মান্নান বলেন, কিছু কিছু স্থানে বৃষ্টিপাত হবে। বৃষ্টিপাতের ধরণটা হবে হালকা থেকে মাঝারি ধরণের এবং সেই সাথে বিচ্ছিন্নভাবে মাঝারি ধরণের ভারী বর্ষণ হবে। সারা দেশে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ থেকে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকার সম্ভাবনাই বেশি। বাতাসে জলীয় বাষ্পের আধিক্যের কারণে ভ্যাপসা গরম অনুভূত হতে পারে।

শুক্রবার সকাল থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়- রংপুর বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়; রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; ঢাকা ও চট্টগ্রামের কিছু কিছু জায়গায় এবং খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

শুক্রবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যশোরে ৩৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে কুতুবদিয়া ও রংপুরে ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে রংপুরে ১৩০ মিলিমিটার। এছাড়া রাজারহাটে ৬২ মিলিমিটার, সৈয়দপুরে ৫৫ মিলিমিটার, দিনাজপুরে ৩৫ মিলিমিটার ও তেঁতুলিয়ায় ৩০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।





ads






Loading...