সাহেদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৩ জুলাই ২০২০, ২০:২৭,  আপডেট: ১৩ জুলাই ২০২০, ২০:৫৮

নমুনা পরীক্ষা না করেই করোনার ভুয়া পজিটিভ-নেগেটিভ রিপোর্ট দেয়া রিজেন্ট হাসপাতাল লিমিটেড এবং রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

সোমবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায় ঢাকার চিফ মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে এই আদেশ জারি করা হয়।

এদিকে সাহেদের দুর্নীতি তদন্তে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সোমবার কমিশন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে সাহেদ করিমের ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়। রোববার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সেল (সিআইসি) তার ব্যাংক হিসাব জব্দ করে।

নমুনা পরীক্ষা ছাড়াই ভুয়া করোনা রিপোর্ট দেয়াসহ নানা অনিয়ম ধরা পড়ায় গত মঙ্গলবার (৭ জুলাই) রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা বন্ধ করে দেয়া হয়। এর পরপরই রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করে র‌্যাব। এর মধ্যে আটজন গ্রেফতার রয়েছেন। ওই মামলায় সাহেদসহ নয়জনকে পলাতক হিসেবে এজাহারভুক্ত করা হয়।

এদিকে রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‌সাহেদ যত বড় ক্ষমতাবানই হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাকে খুঁজে বের করবে। তবে, তারও উচিত আত্মসমর্পণ করা। অন্যথায় তাকে গ্রেফতার করা হবে। যে কোনো সময় সাহেদ গ্রেফতার হবেন।

এদিকে সাহেদ যাতে কোনোভাবেই বিদেশে পালিয়ে যেতে না পারে সেজন্য বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি দেওয়া আছে। একইসঙ্গে সীমান্তে বাড়তি সতর্কতার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া সাহেদকে গ্রেফতারে সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের আইজিপি  ড. বেনজীর আহমেদ।

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads






Loading...