‘প্রতারক’ সাহেদ এখন কোথায়?

- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ জুলাই ২০২০, ২১:৪৮

রাজধানীর উত্তরার বেসরকারি রিজেন্ট হাসপাতালে র‍্যাবের অভিযানের চারদিন পেরিয়ে গেলেও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম এখনো ধরা ছোঁয়ার বাহিরে। তাকে গ্রেফতার করতে অভিযান চালাচ্ছে র‍্যাব। তিনি কোথায় আছেন কেউ বলতে পারছে না।

এর আগে বৃহস্পতিবার গুঞ্জন উঠেছিল সাহেদ সাতক্ষীরার হঠাৎগঞ্জ দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাচ্ছেন। তবে এই গুঞ্জন কতটুকু সত্য, তা শুক্রবার পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিশ্চিত করতে পারেনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সাংবাদিকদের শুক্রবার বলেছেন, ‌‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাঁকে খুঁজে বের করবে। তবে তারও উচিত আত্মসমর্পণ করা। সাহেদকে ধরতে র‌্যাব-পুলিশ খুঁজছে। আশা করি, শিগগিরই তা জানাতে পারবো।’

এদিকে সাহেদের পরিবার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, বাবা সিরাজুল করিমের মৃত্যুর পরও সাহেদ পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন, এমন কোনো তথ্য তাদের কাছে নেই। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে সিরাজুল করিম মারা যান।

সাহেদের স্ত্রী সাদিয়া আরাবি রিম্মি সাংবাদিকদের বলেন, শ্বশুর সিরাজুল করিমের মৃত্যুর পর তাকে হাসপাতাল থেকে সরাসরি মোহাম্মদপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। মোহাম্মদপুরে সিরাজুল তার ভাইদের সঙ্গে একটি বহুতল ভবনে থাকতেন। ছেলের বনানীর বাসায় তিনি কখনই ছিলেন না। সাহেদ তার শ্বশুরের একমাত্র ছেলে। শ্বশুর মারা যাওয়ার খবর সাহেদ পেয়েছেন কি না, তিনি বলতে পারেননি।

এর আগে নমুনা পরীক্ষা না করেই করোনার ভুয়া পজিটিভ-নেগেটিভ রিপোর্ট দেয়া ও হাসপাতালের লাইসেন্সের মেয়াদ না থাকাসহ বিভিন্ন অনিয়মের দায়ে রিজেন্ট হাসপাতালের প্রধান কার্যালয়, উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয় র‍্যাব। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়া সাহেদ যাতে বিদেশে পালিয়ে যেতে না পারে সেজন্য তার দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞাও জারি করা হয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads






Loading...