ভুয়া করোনা রিপোর্টের কথা জানতেন স্বাস্থ্য ডিজি!

- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ জুলাই ২০২০, ১৭:০৬,  আপডেট: ১১ জুলাই ২০২০, ১৭:৩৩

নমুনা পরীক্ষা না করেই হাজার হাজার মনগড়া করোনা রিপোর্ট দেওয়া জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী বলছেন, প্রতারণার বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদকে আগেই জানিয়েছিলেন তিনি।

করোনার ভুয়া রিপোর্ট সরবরাহের অপকর্ম প্রকাশ্যে আসার বেশ কয়েকদিন পার হয়ে গেলেও এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে আছেন ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী। প্রতিষ্ঠানের সিইও এবং ড. সাবরিনার স্বামী আরিফ চৌধুরীসহ বর্তমানে ৬ জন কারাগারে রয়েছে।

এদিকে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে একটি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেলকে ড. সাবরিনা বলেছেন, তিনি নাকি জেকেজির চেয়ারম্যানই নন। তিনি জেকেজির প্রতারণার বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদকেও জানিয়েছিলেন বলে দাবি করেন।

এ বিষয়ে মহাপরিচালককে বারবার ফোন দেয়া হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে ড. সাবরিনা জেকেজির চেয়ারম্যান নন দাবি করলেও পুলিশ বলছে, তার সম্পৃক্ততার বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন গ্রেফতার হওয়া তার স্বামী আরিফুল। শিগগিরই সাবরিনাকে জিজ্ঞাসাবাদের আওতায় নিয়ে আসা হবে বলেও জানান তারা।

প্রায় ৩ মাস ধরে নমুনা সংগ্রহের নামে যে প্রতারণা করেছে জেকেজি, সে কার্যক্রমে সরাসরি অংশ নিয়েছিলেন সাবরিনাও। সে সময় বিভিন্ন গণমাধ্যমে নিজেকে চেয়ারম্যান পরিচয় দিয়ে সাক্ষাৎকারও দিয়েছেন।

পুলিশ বলছে, জেকেজির প্রতারণা থেকে সাবরিনার কোনোভাবেই দায় এড়ানোর সুযোগ নেই। কারণ তার স্বামী আরিফ চৌধুরী জিজ্ঞাসাবাদে প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সাবরিনার সক্রিয় সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন।

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads






Loading...