সংসদে আজ বাজেট পাস

মানবকণ্ঠ
জাতীয় সংসদ ভবন - ফাইল ছবি

poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ৩০ জুন ২০২০, ১১:১৯

প্রস্তাবিত তিন বছর নয়, মাত্র এক বছর পুঁজিবাজারসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের শর্তে কালো টাকা সাদা করার সুযোগের বিধান রেখে অর্থবিল ২০২০ পাস হয়েছে জাতীয় সংসদে। কোনো প্রশ্ন ছাড়াই ফ্ল্যাট ও অ্যাপার্টমেন্ট কেনা, দালান নির্মাণ এবং অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাইটেক পার্কে অপ্রদর্শিত আয়ের অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ গত অর্থবছরই ছিল। নতুন বিধানে এর ক্ষেত্র আরো বাড়ানো হয়েছে। তবে বরাবরের মতোই এসবের জন্য নির্দিষ্ট হারে কর দিতে হবে। এছাড়া বিলে ছোটখাটো কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। তবে বড় ধরনের কোনো পরিবর্তন আসেনি।

গতকাল সোমবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জাতীয় সংসদে বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন। পরবর্তীতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অর্থবিল ২০২০ জাতীয় সংসদে পাসের জন্য ভোটে দিলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়। অর্থবিল পাসের মধ্যদিয়ে নতুন বাজেটের কর প্রস্তাবগুলো কার্যকর হবে। আজ মঙ্গলবার (৩০ জুন) পাস হবে নতুন অর্থবছরের (২০২০-২১) বাজেট। এটি কার্যকর হবে ১ জুলাই থেকে।

গত ১১ জুন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জাতীয় সংসদে তার বাজেট প্রস্তাবে ১০ শতাংশ কর দিয়ে অপ্রদর্শিত আয় বৈধ করার সুযোগ আরো বিস্তৃত করেন। ২০২০-২১ সালের বাজেটে গচ্ছিত অর্থ, সঞ্চয়পত্র, শেয়ার, বন্ড বা অন্য কোনো সিকিউরিটিজের ক্ষেত্রেও কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়। কোনো জরিমানা ছাড়া কেবল ১০ শতাংশ কর দিয়ে যে কেউ তার অবৈধভাবে অর্জিত অথবা কর ফাঁকি দিয়ে গোপনে সঞ্চিত অর্থ এসব খাতে বিনিয়োগ করতে পারবেন। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) বা সরকারের অন্য কোনো কর্তৃপক্ষ ওই টাকার উৎস জানতে চাইবে না।

এদিকে বিলটি পাসের আগে জাতীয় সংসদের সরকারি ও বিরোধীদলীয় এমপিরা অর্থবিলের বিভিন্ন অংশের সংশোধনী প্রস্তাব এনে বক্তব্য রাখেন। পীর ফজলুর রহমান, কাজী ফিরোজ রশিদ, মুজিবুল হক, আবুল হাছান মাহমুদ আলী, আলী আশরাফ, মশিউর রহমান রাঙার অর্থবিলের ওপর আনা কয়েকটি সংশোধনী প্রস্তাব অর্থমন্ত্রী গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে এগুলো ভোটে দিলে তাও কণ্ঠভোটে পাস হয়। তবে এসব সংশোধনীতে অর্থ আদায় বা অন্য কোনো খাতে কোনো পরিবর্তন হবে না।

পাঁচদিন বিরতির পর সংসদের মুলতবি বৈঠক গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হয়। আজ মঙ্গলবার ২০২০-২০২১ অর্থ বছরের জন্য ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট পাস হবে। এটি হবে আওয়ামী লীগ সরকারের ২০তম বাজেট। করোনা মোকাবিলা করে অর্থনীতিতে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য এই বাজেট। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এই বাজেট বাস্তবায়নে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। একই সঙ্গে রাজস্ব আদায়ে অটোমেশন পদ্ধতি বাস্তবায়নের মাধ্যমে এবারের বাজেট বাস্তবায়ন করে তিনি তাক লাগিয়ে দেবেন বলেও চ্যালেঞ্জ ছুড়েছেন।

মানবকণ্ঠ/এইচকে






ads
ads