আমাকে সংসদে আসতে নিষেধ করা হয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা - ছবি: সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৪ জুন ২০২০, ১৭:২৫

জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, আজ আমি সংসদে আসবো। কিন্তু অনেক জায়গা থেকে আমাকে সংসদে আসতে নিষেধ করা হয়েছিল। ভীষণভাবে বাধা দেয়া হয়েছে, ‘না না আপনি যাবেন না, নেত্রী যাবেন না'। তা আমি বললাম হুমকি, বোমা, গ্রেনেড কত কিছুই তো মোকাবিলা করে করে এ পর্যন্ত এসেছি। এখন কী একটা অদৃশ্য শক্তির ভয়ে ভীত হয়ে থাকবো।

রোববার (১৪ জুন) দুপুরে সংসদের বাজেট অধিবেশনে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পার্লামেন্টের মেম্বার, আমাদের আওয়ামী লীগের পরিবারের একজন সংসদ তাকে হারিয়েছি। আমাদের কেবিনেটের একজন সদস্য তাকেও হারালাম। আর সেখানে আমি সংসদে যাবো না, এটা তো হয় না।

তিনি বলেন, যে দুজন মানুষ সবসময় পাশে ছিলেন, তাদের দুজনকেই একই দিনে হারালাম। সংসদে বারবার শোক প্রস্তাব নিতে হচ্ছে। এটা কষ্টকর। নাসিম ভাই বারবার হামলার শিকার হয়েছেন, মার খেয়েছেন। ১/১১ এ গ্রেফতার হলেন তিনি। জেলখানায় স্ট্রোক করলেন। দ্রুত হাসপাতালে নেয়ার কারণে সে সময় তিনি বেঁচে যান। কিন্তু তার একটা পাশ তখনই প্যারালাইজড হয়। রাজপথে তিনি বারবার অত্যাচার সহ্য করেছেন। তবুও থেমে থাকননি। ঐক্যের বিষয়ে কাজ করা, বারবার সভা করার কাজ করেছেন তিনি। তার চলে যাওয়া দলের জন্যে বড় ক্ষতি।

ধর্ম প্রতি মন্ত্রীর কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকা সেখানে। আমার অবর্তমানে সেখানে সংগঠন ধরে রাখা, নেতাকর্মীদের প্রতি নজর রাখার কাজ করেছেন তিনি। আমি যখন সরকারে ছিলাম, বিরোধী দলে ছিলাম তিনিই এলাকার দেখভাল করেছেন তিনি। তার মৃত্যু হল হঠাৎ করে। ওলামা, মাসায়েখদের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা, কওমি মাদ্রাসার সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কাজ করেছেন তিনি। কওমিদের সার্টিফিকেট দেয়ার বিষয়ে সবচেয়ে ভূমিকা রেখেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন আমরা যে অবস্থাটা দেখছি এমনটা কখনও দেখিনি। আমার সহযোদ্ধা, আমার ক্যাবিনেট মন্ত্রী মারা যাচ্ছেন। অথচ আমি তাদের দেখতে পারছি না। আমি গুলি বোমা গ্রেনেড হামলা দেখেছি। অথচ এখন এই করোনা পরিস্থিতিতে আমাকে বলা হচ্ছে, আপনি এখানে যেতে পারবেন না, ওখানে যেতে পারবেন না।

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads







Loading...