করোনা সন্দেহে চিকিৎসাবঞ্চিত ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

করোনা সন্দেহে চিকিৎসাবঞ্চিত ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু
করোনা সন্দেহে চিকিৎসাবঞ্চিত ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু - ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৬ এপ্রিল ২০২০, ১৯:৪১,  আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০২০, ১৯:৪৬

করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে বিভিন্ন হাসপাতালে হাসপাতালে ঘুরেও চিকিৎসা না পাওয়ায় শেষ পর্যন্ত বিনা চিকিৎসায় মারা গেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষা ও গবেষণা অনুষদের ২২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সুমন চাকমা। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন।

সোমবার (৬ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ির সদর উপজেলার আগালাশিং পাড়ার দাতকুপ্যা গ্রামের নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সুমন।

গত ২৬ মার্চ সকালে সুমন তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে লিখেন, ‘আমার করোনা হয়নি অথচ পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে করোনার জন্যই আমাকে মারা যেতে হবে।’ ১১ দিন পার না হতেই সুমনের সেই শঙ্কা বাস্তবে পরিণত হলো। বিনা চিকিৎসায় মারা গেল এই মেধাবী শিক্ষার্থী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সুমনের বাবা সুপেন চাকমা গণমাধ্যমকে বলেন, আজ সকাল ৮টা ৩৩ মিনিটে সুমন মৃত্যুবরণ করেছে। ২০১৮ সাল থেকে সে ক্যান্সারে আক্রান্ত। বাংলাদেশ ও ভারতে কয়েকবার ডাক্তার দেখানো হয়েছিল। এ বছর থেকে সে সুস্থ হয়ে ক্লাস করাও শুরু করেছিল। তৃতীয় বর্ষের মিড পরীক্ষা দেয়ার সময় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেয়। সে ছুটিতে বাড়ি চলে আসে। তারপর সে বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে চিকিৎসা করানোর জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়সহ ঢাকার পাঁচ-ছয়টি হাসপাতালে নিয়ে যাই। কিন্তু তারা কেউ করোনার ভয়ে তার চিকিৎসা দেয়নি। ঢাকা থেকে ডাক্তার না দেখিয়েই বাড়ি চলে আসতে হলো। পরে চট্টগ্রামে এক হোমিও চিকিৎসকের কাছ থেকে ২৪ দিনের ওষুধ নিয়েছি। কয়েক দিনের ওষুধ নিয়ে আসছিলাম। পরে ওষুধ শেষ হওয়ার পর আর আনা যাচ্ছিল না। গাড়ি বন্ধ ছিল। ভালো চিকিৎসা ও ওষুধের অভাবে ছেলেটাকে হারিয়ে ফেললাম।

মানবকণ্ঠ/এসকে




Loading...
ads






Loading...