এবছর ৪০ শতাংশ বেশি পণ্য মজুত রয়েছে : বাণিজ্যমন্ত্রী

এবছর ৪০ শতাংশ বেশি পণ্য মজুত রয়েছে : বাণিজ্যমন্ত্রী
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি - ফাইল ছবি।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৮ মার্চ ২০২০, ২০:১২

গত বছরের চেয়ে এবার নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মজুতের পরিমাণ প্রায় ৪০ শতাংশ বেশি রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। এছাড়া ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) মাধ্যমে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রির সক্ষমতা কয়েকগুণ বাড়ানো হয়েছে।

বুধবার (১৮ মার্চ) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসহ সব পণ্যের মজুত, সরবরাহ ও মূল্য পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আগামী এপ্রিল মাসের প্রথম থেকেই টিসিবি ন্যায্যমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য খোলা বাজারে বিক্রি শুরু করবে। দেশে পেঁয়াজের মূল্য স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। দেশি পেঁয়াজ বাজারে এসেছে, পাশাপাশি গত ১৫ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় আট হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। পণ্য সামগ্রীর সরবরাহ ও মূল্য নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। সংশ্লিষ্ট সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে আতঙ্কিত হয়ে কোনো পণ্য অতিরিক্ত কেনার প্রয়োজন নেই। যেকোনো অপপ্রচার থেকে সতর্ক থাকতে হবে। এজন্য ভোক্তাকে সচেতন হতে হবে। আসন্ন রমজান মাস উপলক্ষে চাহিদার কয়েকগুণ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মজুত করা হয়েছে। তেল, ডাল, চিনি, পেঁয়াজ, রসুন, ছোলা, লবণসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মজুত নিশ্চিত করা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে জবাবে মন্ত্রী বলেন, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর বাজার তদারকি ইতোমধ্যে জোরদার করেছে। ভোক্তাদের সচেতন করতে দেশের প্রচার মাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকলে মূল্যবৃদ্ধির কোনো কারণ নেই, সরকার সব পণ্যের পর্যাপ্ত সরবরাহ নিশ্চিত করার পদক্ষেপ নিয়েছে। কৃত্রিম সঙ্কট তৈরির প্রবণতারোধ করতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এসময় বাণিজ্যসচিব ড. মো. জাফর উদ্দীন, অতিরিক্ত সচিব মো. ওবায়দুল আজম, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) বাবলু কুমার সাহা, টিসিবি’র চেয়ারম্যান ব্রি. জে. মো. জাহাঙ্গীর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এআইএস






ads