সংসদে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩৮

এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩৮
এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩৮ - ফাইল ছবি।

poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২০:১৬

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছেন, এলপি গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারে অদক্ষতা এবং অসচেতনতার কারণে সংঘটিত বিস্ফোরণে এ পর্যন্ত ৩৮ জন নিহত এবং ৭২ জন আহত হয়েছে। সরকার নিরাপদ এলপি গ্যাস সিলিন্ডার ও সিএনজি সিলিন্ডার প্রস্তুতসহ নিরপাদ গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে একাদশ সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশনে গতকাল টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নাত্তর পর্বে মহিলা এমপি লুৎফুন নেসা খানের লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব তথ্য জানান।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিধিমালা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করা হচ্ছে কী না, যাচাইয়ের জন্য সিলিন্ডার মজুদের স্থান, সিলিন্ডার পরীক্ষা কেন্দ্র নিয়মিতভাবে পরিদর্শন করা হচ্ছে। নিয়মিতভাবে অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রাখা হয়েছে। এছাড়া এ বিষয়ে জনসচেতনতা গড়ে তুলতে দেশব্যাপী ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করার কোনো পরিকল্পনা নেই:

গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের (বগুড়া-৬) প্রশ্নের লিখিত জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী জানান, বিগত ৫ বছরে অর্থাৎ ২০১৫ হতে ২০১৯ পর্যন্ত ভোক্তা পর্যায়ে প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল্য তিনবার সমন্বয় বৃদ্ধি করা হয়েছে। তবে ২০১৭ সালের মার্চ মাসে একই আদেশে দুই ধাপে মূল্য সমন্বয় করা হয়েছে। তবে পুনরায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করার কোনো পরিকল্পনা সরকারের আপাতত নেই।

বিদ্যুতের সিস্টেম লস কমেছে:

সাবেক হুইপ শহীদুজ্জামান সরকারের (নওগাঁ-২) লিখিত প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানান, বিদ্যুতের অপচয় ও অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহার রোধে সরকার নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। বিদ্যুতের অবৈধ ব্যবহার বন্ধ করার জন্য মোবাইল কোর্ট ও ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। ফলে বিদ্যুতের সিস্টেম লস গত অর্থবছরের তুলনায় হ্রাস পেয়েছে। সরকারের সঠিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও নিবিড় তদারকি এবং প্রি-পেইড মিটার স্থাপনের মাধ্যমে বিদ্যুতের অপচয় হ্রাস পেয়েছে।

এলএনজিসহ দৈনিক গ্যাসের সরবরাহ ৩ হাজার ১৬০ ঘনফুট:

মাহফুজুর রহমানের (চট্টগ্রাম-৩) লিখিত প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী জানান, দেশীয় গ্যাস ক্ষেত্রসমূহ হতে বর্তমানে দৈনিক ২ হাজার ৫৭০ মিলিয়ন ঘনফুট হারে গ্যাস উৎপাদিত হচ্ছে। আমদানিকৃতএলএনজিসহ (তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস) বর্তমানে দেশে দৈনিক ৩ হাজার ১৬০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, সমুদ্রাঞ্চলে তেল/গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনার জন্য চারটি ব্লকে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক তেল কোম্পানির সঙ্গে উৎপাদন বন্টন চুক্তি (পিএসসি) স্বাক্ষরিত হয়েছে। এ সকল ব্লকে সম্পাদিত দ্বি-মাত্রিক এবং ত্রি-মাত্রিক জরিপের ভিত্তিতে অগভীর সমুদ্রের ৩টি ব্লকে ২০২১ সালের মার্চ মাসের মধ্যে চারটি অনুসন্ধান কূপ খনন করা হবে। এছাড়া নতুন বিডিং রাউন্ড আহ্বান করার কার্যক্রম হিসেবে মডেল পিএসসি অনুমোদিত হয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads






Loading...