পরিবেশমন্ত্রীর সঙ্গে কাতারের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

পরিবেশমন্ত্রীর সঙ্গে কাতারের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ
পরিবেশমন্ত্রীর সঙ্গে কাতারের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ - সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২১ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:৪৮

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন কাতারের রাষ্ট্রদূত আহমেদ মোহাম্মদ আল দিহাইমি।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে পরিবেশমন্ত্রীর নিজ কার্যালয়ে দুজনের মধ্যে সাক্ষাৎ হয়। এ সময় তাঁরা পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

কাতারের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণ নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ‘বাংলাদেশ অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে উন্নয়ন করছে, যার ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম নতুন এক বাংলাদেশ দেখতে পাবে।’

তিনি বলেন, ‘এ মেয়াদে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের পর কাতার ধরেই নিয়েছিল, এবারের সরকারের মূল লক্ষ্যই হবে অর্থনৈতিক উন্নয়ন।’

জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্ত দেশের পক্ষে সমর্থন দেয়ার বিষয়ে পরিবেশমন্ত্রীর আহবানের প্রেক্ষিতে কাতারের রাষ্ট্রদূত জানান, এ বিষয়ে তার সরকার সব সময়ই সোচ্চার। আন্তর্জাতিক সকল ফোরামে কাতার এ বিষয়ে উচ্চকণ্ঠ।

এসময় কাতারের রাষ্ট্রদূত জানান, জলবায়ু ইস্যুতে বাংলাদেশ ও কাতার একযোগে কাজ করবে। প্রয়োজনে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর, পারস্পরিক অভিজ্ঞতা বিনিময়সহ সংশ্লিষ্ট বহুমুখী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে তিনি বলেন, ‘কাতার প্রথম মুসলিম দেশ, যারা রোহিঙ্গাদের জন্য প্রথম মানবিক সহায়তা পাঠিয়েছিল। জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সকল ফোরামে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য তার সরকারের চাপ প্রয়োগ অব্যাহত রাখবে।’

পরিবেশমন্ত্রী কাতারে কর্মরত বাংলাদেশি প্রবাসীদের সমস্যার বিষয়ে কাতার সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেন।

জবাবে কাতারের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘কাতারে বর্তমানে বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন উপলক্ষে বিশাল কর্মযজ্ঞ চলছে, এর পরও দেশের ভিশন ২০৩০ অর্জন উপলক্ষে দেশের কর্মকাণ্ড চলমান থাকবে। ফলে বাংলাদেশি কর্মজীবীদের কোনো সমস্যা হবে না।’

বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নের প্রশংসা করায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন কাতারের রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘বন্ধুপ্রতিম দুদেশের এক সাথে কাজ করার অনেক ক্ষেত্র রয়েছে। নিজেদের জাতীয় স্বার্থেই সে সকল বিষয়ে কাজ করে যেতে হবে।’

বাংলাদেশ কাতারের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মিত্র উল্লেখ করে কাতারের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমঝোতার ভিত্তিতে দু’দেশ আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে যেটা ক্রমবর্ধমান গতিতে অব্যাহত থাকবে।’

বিদ্যুৎ, বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রতি কাতারের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান ।

সৌজন্য সাক্ষাতে তিনি ৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশে অনুষ্ঠিতব্য কাতারের জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানমালায় পরিবেশমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানান।

এসময় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (জলবায়ু পরিবর্তন) ড. নুরুল কাদির ও অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মাহমুদ হাসান উপস্থিত ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads





Loading...