বিএনপি বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে প্রতিহত করা হবে: তথ্যমন্ত্রী

বিএনপি বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে প্রতিহত করা হবে: তথ্যমন্ত্রী
তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ - প্রতিবেদক

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:১৭

বিএনপির আন্দোলন কর্মসূচি দিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা করলে তা প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আয়োজিত ‘বিএনপিসহ কুচক্রী মহলের দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন’ শীর্ষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, যে চুক্তিগুলোর মাধ্যমে শেখ হাসিনা দেশের স্বার্থ আদায় নিশ্চিত করেছেন, সেগুলোর অমূলক বিরোধিতা করে আন্দোলনের নামে তারা যদি বিশৃঙ্খলার অপচেষ্টা চালায়, দেশের জনগণ তাদের প্রতিহত করবে।

আর বুয়েটের হত্যাকাণ্ড নিয়ে কেউ যদি পানি ঘোলা করা বা এটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা করে সেটাও প্রতিহত করা হবে বলে মন্তব্য করেন হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, আবরার হত্যাকাণ্ড অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক ও নৃশংস। আমরা প্রথম থেকেই এর প্রতিবাদ করছি এবং প্রধানমন্ত্রী দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির কথা বলেছেন। তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে।

দাবি তোলার আগেই যাদেরকে এর সাথে যুক্ত মনে হয়েছে তাদের প্রায় সবাইকেই সাথে সাথে গ্রেপ্তার করা হয়েছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী প্রশ্ন রাখেন, বিএনপির সময় বুয়েটের শিক্ষার্থী সনি হত্যাকাণ্ড, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির ঘটনাসহ বহু ঘটনার বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া কি ব্যবস্থা নিয়েছিলেন?

‘বিএনপি কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। আর আজ তারা আমার-আপনার ছেলের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে তারা পানি ঘোলা করতে চায়’, বলেন তিনি।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদের আবেগ ও প্রতিবাদের সাথে আমি একাত্মতা পোষণ করি। কিন্তু এঘটনাকে কেন্দ্র করে যারা অপরাজনীতির চেষ্টা চালাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।'

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাম্প্রতিক ভারত সফরে দেশের স্বার্থ শুধু সংরক্ষণই করেননি। ভারতের কাছ থেকে দেশের স্বার্থ আদায় করে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছেন। আর বিএনপি নেতারা সে চুক্তিগুলো প্রথমে না পড়েই, পরে পড়েও নানা অপপ্রচার-বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। বিএনপির শিক্ষিত নেতারা কিভাবে মুর্খের মতো কথা বলেন, বুঝি না।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেন, স্বাধীনতা পরিষদের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার জাকির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাদাত হোসেন টয়েল প্রমুখ সমাবেশে বক্তব্য দেন।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads





Loading...