'সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নয়, মিন্নি কেন সাত নম্বর'


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:৫২

বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথের ছেলে সুনাম দেবনাথকে আসামি না করায় এবং মিন্নিকে মামলার সাত নম্বর আসামি করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে আলোচিত রিফাত শরিফ হত‌্যা মামলায় অভিযুক্ত অপর আসামিরা।

মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে দশটার দিকে রিশান ফরাজীসহ কয়েকজন আসামি চিৎকার করে বরগুনা জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালত চত্বরে বলেন, ‘এটা অন্যায়, এটা অবিচার। মিন্নি কেন সাত নম্বর আসামি? রিফাত হত্যার নির্দেশদাতা সে। বাদশা হত্যার কেন বিচার নাই, এটা অবিচার এটা অন্যায়। সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নয়?’

আদালতে হাজিরা শেষে আসামিদের ফের জেল হাজতে পাঠানোর জন্য পুলিশের গাড়িতে তোলার সময় তারা এভাবে চিৎকার করতে থাকেন। এ সময় পুলিশ আসামিদের দ্রুত প্রিজন ভ্যানে তুলে জেল হাজতে নিয়ে যায়।

সুনাম দেবনাথ বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথের ছেলে। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক। আসামিদের বক্তব‌্যের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপনারা জানেন আসামিদের একটি অংশ আমাদের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ। ওই প্রতিপক্ষের ছত্রছায়ায় এরা এসব অপকর্ম করে বেড়াত। তাদের শেখানো কথাই এখন আসামিরা বলে আমার ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করছে। আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখুন, ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে কেউ কোথাও আমার সম্পৃক্ত থাকার কথা বলেছে কি না। যদি সেখানে তারা এসব না বলে থাকে, তবে এখন এমন বক্তব‌্যের মানে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন!

এদিকে দুপুর নাগাদ বরগুনা জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজীর আদালতে মিন্নির জামিন মঞ্জুরের আদেশ সংক্রান্ত হাইকোর্টের আদেশ ডাকযোগে এসে পৌঁছেছে।

মিন্নির আইনজীবী মাহবুবুল বারি আসলাম জানান, বেলা তিনটা নাগাদ আদালতের বেলবন্ড বরগুনা জেলা কারাগারে পৌঁছাতে পারে। বেলবন্ড পৌঁছালেই মিন্নি কারাগার থেকে মুক্ত হতে পারবে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে/এফএস





ads